খেতের মাঝে লাগানো সানি লিওনের পোস্টার। তবে গ্রামবাসীদের আকর্ষণ করতে নয়, বরং তাদের নজর ঘোরাতেই একাজ করলেন এক কৃষক। তাঁর নাম চেনচু রেড্ডি। অন্ধ্রপ্রদেশের বান্দা কিন্দি পাল্লি গ্রামের বাসিন্দা। ওই কৃষক জানান, গ্রামবাসীদের খারাপ নজর থেকে ফসল বাঁচাতেই একাজ করেছেন তিনি। কারণ, সানি লিওনের ওই পোস্টার দেখে অনেকেই মুখ ঘুরিয়ে নেবেন।

নিজের গ্রামে ১০ একর জমি আছে চেনচু রেড্ডির। সেখানে মূলত ফুলকপি আর বাঁধাকপি চাষ হয়। এবছর জমিতে বেশ ভালো ফসল হয়েছে। স্বভাবতই তা দেখে অনেক গ্রামবাসী যাতায়াতের পথে খেতের দিকে তাকাচ্ছিলেন। চেনচু রেড্ডির মনে করেন, এতে তাঁর ফসলের ক্ষতি হতে পারে। তাই, কাকতাড়ুয়া বা অন্য কোনও ভয়ঙ্কর মূর্তি ব্যবহার না করে, খেতের মাঝে সানি লিওনের লাল বিকিনি পরা পোস্টার টাঙিয়ে দেন।

তাতে লেখা রয়েছে, “দেখো, কান্নাকাটি কোরো না বা আমাকে হিংসা কোরো না।” আর তারপর থেকেই নাকি যাতায়াতের পথে গ্রামবাসীদের দাঁড়িয়ে পড়ে তাঁর খেতের দিকে তাকানো অনেক কমে গেছে। কৃষি বিভাগের কয়েকজন আধিকারিক এবিষয়ে আপত্তি তুলেছিলেন। তাঁদের কথায় পাত্তা না দিয়ে ওই কৃষক বলেন, “চাষের ক্ষেত্রে আমাদের কোনও সমস্যা হলে ওরা সমাধান করতে আসে না। তাহলে এখন কেন এই ব্যাপারে নাক গলাচ্ছে?”

অন্ধ্রপ্রদেশ বা দক্ষিণের রাজ্যগুলিতে অধিকাংশ মানুষই এই “খারাপ নজর”-এ বিশ্বাস করেন। তাঁরা মনে করেন, কারও পরিবারিক শান্তি, সম্পত্তি বা স্বাস্থ্যের উপর এমন খারাপ নজর পড়লে মারাত্মক ক্ষতি হয়। তাই বাড়ি হোক বা চাষের জমি, তার আশপাশে লাগিয়ে রাখেন বিকটাকার মুখাবয়ব বা মূর্তি। তবে, কোনও অভিনেত্রীর পোস্টার লাগিয়ে খারাপ নজর থেকে রক্ষা পাওয়ার ঘটনা এর আগে ঘটেছে বলে মনে হয় না।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here