ইউরোপীয় ফুটবলের আসল লড়াইয়ে সেই চেনারূপে রোনালদোর রিয়াল মাদ্রিদ। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলর প্রথম লেগে বুধবার রাতে ৩-১ গোলে তারা হারিয়েছে নেইমারের পিএসজিকে। জয়ের নায়ক  রোনালদোই। চলতি মৌসুমে যিনি ছিলেন প্রায় টানা নিষ্প্রভ। তবে আসল লড়াইয়ে ঠিকই জ্বলে ওঠেন সিআর সেভেন।

কোয়ার্টার নিশ্চিত করতে আগামী মাসে ঘরের মাঠে ফিরতি লেগে বড় ব্যবধানে জয় ছাড়া বিকল্প নেই নেইমারের দলের।

আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে ম্যাচের শুরু থেকেই জমে ওঠে খেলা। প্রথম ৩০ মিনিটের মধ্যে বলার মত আক্রমণটি ছিল কেবল রোনালদোরই। ২৮ মিনিটে বামপ্রান্ত দিয়ে মার্সেলোর উড়ে আসা পাস সুবিধাজনক জায়গায় পেয়ে জোরাল শট নিয়েছিলেন রোনালদো। সেটি পিএসজি গোলরক্ষক আরিওলার মুখে লেগে ফিরে এসে গোলবঞ্চিত করে পর্তুগিজ অধিনায়ককে।

স্বাগতিকরা ব্যর্থ হলেও নিজেদের প্রথম পূর্ণ সুযোগের পুরো ফায়দাই তুলেছে পিএসজি। ৩৩ মিনিটে কাইলিয়ান এমবাপের থেকে আসা ক্রসে ব্যাকহিল করেন নেইমার। সেখান থেকে পেছনে ওঁত পেতে থাকা মিডফিল্ডার আদ্রিয়ান রাবিওর জোরাল শট রিয়াল গোলরক্ষক কেইলর নাভাসকে পরাস্ত করে।

পিএসজি এগিয়ে যাওয়ার চার মিনিটে বাদে সমতায় ফেরার দারুণ সুযোগ হাতছাড়া করেছেন রোনালদো। ৩৭ মিনিটে ডি-বক্সের ভেতরে বল পেয়েও বার উঁচিয়ে বাইরে পাঠিয়েছেন পাঁচবারের বর্ষসেরা তারকা। ৪৪ মিনিটে করিম বেনজেমার আচমকা শট ফিরিয়ে দেন পিএসজি গোলরক্ষক।

বিরতিতে যাওয়ার ঠিক আগমুহূর্তে সমতায় ফেরে রিয়াল। ডি-বক্সে টনি ক্রুজ ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। স্পটকিকে বার্নাব্যুর দর্শকদের মুখে হাসি ফোটান রোনালদো। সঙ্গে প্রথম ফুটবলার হিসেবে নির্দিষ্ট একটি ক্লাবের হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গোলের সেঞ্চুরির ইতিহাস গড়েছেন সিআর সেভেন।

মধ্যবিরতি থেকে ফিরেই ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ হারিয়েছে পিএসজি। ৪৯ মিনিটে নেইমারের ক্রস থেকে এমবাপের শট ঠেকিয়ে দেন রিয়াল গোলরক্ষক নাভাস। ৭৩ মিনিটে জটলার মধ্য থেকে কিমপেম্বের জোরাল শটে পা বাড়িয়ে রিয়ালের রক্ষাকর্তা হন অধিনায়ক রামোস।

ম্যাচের ৭৫ মিনিটে আরও একবার ব্যবধান বাড়াতে ব্যর্থ হয় পিএসজি। রিয়াল বক্সের বামপ্রান্ত দিয়ে কাভানির বদলি খেলোয়াড় টমাস মুনিয়েরের পাসে পা ছোঁয়াতে ব্যর্থ হন নেইমার ও আলভেজ।

পরে ৭৯ মিনিটে ইস্কোর বদলি হিসেবে মার্কো আসেনসিওকে নামান রিয়াল কোচ জিনেদিন জিদান। তাতে যেন ম্যাচে প্রাণ ফিরে পায় স্বাগতিকরা।

আসেনসিওর ঝলকের সঙ্গে রোনালদোর জাদুতে ৮৩ মিনিটে ব্যবধান বাড়ায় রিয়াল। নিজেদের মধ্যে বল আদান-প্রদান করে ডি-বক্সের বাইরে থেকে আসেনসিওর শট বিপদমুক্ত করতে ব্যর্থ হন পিএসজি গোলরক্ষক। সেই সুযোগে হাল্কা ছোঁয়ায় চলতি চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নিজের এগারতম গোল পুর্ণ করেন সিআর সেভেন।

তিন মিনিট বাদে আবারও ঝলক দেখান আসেনসিও। তার পাসেই পিএসজিকে আরও একবার হতাশ করেন ডিফেন্ডার মার্সেলো।

রাতের অন্য ম্যাচে সাদিও মানের হ্যাটট্রিকে এফসি পোর্তকে ৫-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে লিভারপুল। ইংলিশ জায়ান্টরা টুর্নামেন্টের সেরা আটে উঠেই গেছে বলা যায়। পোর্তোর মাঠে অল রেডসদের অন্য গোল দুটি মোহাম্মেদ সালেহ ও রবের্তো ফিরমিনোর।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here