আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি লঙ্কানদের বিপক্ষে দুই ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। এরই মধ্যেই শুক্রবার সিলেটে পৌঁছে গেছে। শনিবার সকালে সবার আগে মাঠে এসেছে শ্রীলঙ্কা জাতীয় ক্রিকেট। জয়ের ধারা ধরে রাখতে চায় লঙ্কানরা। অনুশীলন শেষে এমনটাই জানান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে।

ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে দাপুটে জয় তুলে অন্যরকম এক বার্তা দিয়েছিল হেড কোচবিহীন বাংলাদেশ। কিন্তু সময়ের সঙ্গে পাল্টেছে দৃশ্যপট। সাবেক কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে প্রতিপক্ষ দলের সঙ্গে থাকায় টাইগারদের শক্তি-দুর্বলতা নিয়ে দ্রতই পাঠ দিতে পেরেছেন ক্রিকেটারদের।

ঘুরে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশের মাটিতে অনেকটা ‘অজেয়’ হয়ে উঠেছে সফরকারীরা। সফরের শেষ টি-টুয়েন্টি ম্যাচের আগে হাথুরু যেমন নিজ দলকে সিরিজ জেতানোর পরিকল্পনা আটছেন, তেমনি পুরনোর শিষ্যদের কথা মনে করে চাইছেন বাংলাদেশও ভাল খেলুক।

শনিবার সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে হাথুরু বলেন, ‘প্রথম দুই ম্যাচে তারা দারুণ দাপট দেখিয়েছে। সেটা আমার কাছে প্রত্যাশিতই ছিল, ওরকম না হলেই বরং আমি খুব হতাশ হতাম। আমি খুশিই ছিলাম সেটি নিয়ে। পরে যেভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছি, সেটি নিয়েও আমি খুশি। ব্যক্তিগতভাবে আমার জন্য এটি খুবই তৃপ্তিদায়ক সফর।’

বাংলাদেশের সদ্য সাবেক হয়ে যাওয়া লঙ্কান কোচের দাবি, এখনো তিনি বাংলাদেশ ক্রিকেটের শুভাকাঙ্ক্ষী, ‘এখান থেকে যাওয়ার পর আমি চাই বাংলাদেশ ভাল করুক। তারা কিভাবে সামনে এগোয়, সেদিকে চোখ রাখব আমি।’

বাংলাদেশের হয়ে তিন বছর কোচ হিসেবে কাজ করলেও এবারই প্রথম সিলেট গেলেন হাথুরুসিংহে। উইকেট নিয়ে কিছুটা দ্বিধায় এই লঙ্কান। অধিনায়ক চান্দিমালকে নিয়ে ৩০ মিনিট ঘুটিয়ে ঘুটিয়ে দেখেছেন আন্তর্জাতিক অভিষেক হতে যাওয়া ভেন্যুটির  উইকেট।

পরে সংবাদ সম্মেলনে উইকেট নিয়ে হাথুরু বলেন,  এখানকার উইকেট এখনো শতভাগ তৈরি হয়নি। উইকেটে এখনো কাজ চলছে। আগামীকাল ম্যাচের আগে উইকেট দেখে বোঝা যাবে আসলে কেমন?’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here