রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেছেন, যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ার ভেতরে চিরদিনের জন্য অবৈধভাবে সেনা মোতায়েন রাখার পরিকল্পনা নিয়েছে আমেরিকা। তিনি মার্কিন এ পরিকল্পনার তীব্র নিন্দা জানান।

গতকাল (শুক্রবার) ইউরোনিউজকে ল্যাভরভ আরো বলেন, জাতিসংঘ ও সিরিয়া সরকারের কোনো অনুমতি ছাড়াই মার্কিন স্পেশাল ফোর্স সিরিয়ার ভেতরে গত কয়েক বছর ধরে তৎপর রয়েছে। তিনি বলেন, “মার্কিন সেনারা সিরিয়ায় রয়েছে দুই থেকে তিন বছর। এ কাজে তাদেরকে যেমন সিরিয়া আমন্ত্রণ জানায় নি তেমনি জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের কাছ থেকে তারা কোনো অনুমতি নেয় নি। এটা সম্পূর্ণ অবৈধ।

ল্যাভরভ হুঁশিয়ারি উুচ্চারণ করে বলেন, “বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মার্কিন সেনা উপস্থিতি কমছে না বরং দিন দিন তা বাড়ছে। এ থেকে পরিষ্কার হয় যে, আমেরিকা সম্ভবত সিরিয়ায় চিরদিনের জন্য থাকার কৌশল নিয়েছে। তারা ঠিক এ কাজটিই করছে ইরাক ও আফগানিস্তানে।” তিনি সতর্ক করে বলেন, সিরিয়ার ভেতরে আমেরিকা আলাদা রাষ্ট্র গঠনের চেষ্টা করছে এবং যখনই তারা সিরিয়ায় স্থায়ী হয়ে যাবে তখন সিরিয়ার বিরাট অংশ কুর্দিদের সহায়তায় মূল রাষ্ট্র থেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলে সেখানে স্বায়ত্ত্বশাসন প্রতিষ্ঠা করবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here