২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের অভিযোগকে ‘বাজে কথা’ বলে উড়িয়ে দিয়েছেন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ। মার্কি বিচার বিভাগ ওই অভিযোগে রাশিয়ার ১৩ ব্যক্তি ও তিন সংস্থাকে অভিযুক্ত করার একদিন পর ল্যাভরভ এ মন্তব্য করলেন।

৫৪তম মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে শনিবার দেয়া বক্তব্যে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “যতক্ষণ পর্যন্ত আমাদের কাছে প্রমাণ উপস্থাপন করা না হবে ততক্ষণ পর্যন্ত এগুলোকে বাজে কথা বলেই বিবেচনা করা হবে।”

শুক্রবার মার্কিন বিচার বিভাগের বিশেষ কৌঁসুলি রবার্ট মুলার ২০১৬ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হস্তক্ষেপের জন্য ১৩ রুশ নাগরিক ও তিনটি প্রতিষ্ঠানকে দায়ী করেন। তিনি দীর্ঘদিন ধরে এ বিষয়ে কথিত তদন্ত শেষ করে এক প্রতিবেদনে এ দাবি করেন।

ল্যাভরভ ওই প্রতিবেদন সম্পর্কে সরাসরি কোনো কথা বলেননি। তবে এ সম্পর্কে সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে মন্তব্য করতে বলা হলে তিনি বলেন, “আমি এ সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করতে চাই না। কারণ, যে কেউ একতরফাভাবে যা খুশি তাই প্রকাশ করতে পারে। ” রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, “আমরা দেখলাম কীভাবে অভিযোগ ও বিবৃতিতে কয়েকগুণ বাড়িয়ে উপস্থাপন করা যায়।” কিন্তু যতক্ষণ পর্যন্ত প্রমাণ উপস্থাপন করা না হবে ততক্ষণ রাশিয়া এ ধরনের অভিযোগকে বাজে কথা বলেই ধরে নেবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

এর আগে শুক্রবার ল্যাভরভ বলেছিলেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে সমর্থনের জন্য মস্কো রাষ্ট্রীয়ভাবে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি। অবশ্য নয়া মার্কিন প্রেসিডেন্টের প্রতি রাশিয়ার কোনো কোনো নাগরিকের সমর্থন থেকে থাকতে পারে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here