পাটের হারানো গৌরব ফিরিয়ে আনতে সম্মিলিত প্রচেষ্টার ওপর জোর দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বলেছেন, আমাদের মাটি পাটচাষের উপযোগী। মাটির গুণাগুণ ধরে রাখতে ফসলচক্রে পাট সবচেয়ে উপযোগী ও লাভজনক ফসল। আমাদের শ্রম, মেধা, গবেষণালব্ধ ফল, পাটের বহুমুখী পণ্যের সম্ভার ও বাজার সম্প্রসারণ করতে সবার সমন্বিত চেষ্টা প্রয়োজন। সবার উদ্যোগেই পাটের হারানো গৌরব ফিরিয়ে আনতে আমরা অবশ্যই সক্ষম হবো।

মঙ্গলবার জাতীয় পাট দিবস উপলক্ষে দেওয়া এক বাণীতে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। পাটচাষিসহ এ খাতের সংশ্লিষ্ট সবাইকে শুভেচ্ছা জানান তিনি। এবার দ্বিতীয়বারের মতো দেশে পাট দিবস পালন করা হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, একসময় প্রধান অর্থকরী ফসল পাট এখন দেশের তৃতীয় বৃহত্তম বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনকারী খাত। বাঙালির স্বাধিকার আন্দোলন এবং অর্থনৈতিক মুক্তির হাতিয়ার হিসেবে পাটের ভূমিকা একটি স্বীকৃত ইতিহাস।

তিনি বলেন, আমরা ১৯৯৬ সালে সরকার পরিচালনার দায়িত্ব নিয়ে পাট খাতের উন্নয়নে মনোযোগী হই। ২০১৬ সালে পাটকে কৃষিজাত পণ্য হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন-২০১০ এবং এ সংক্রান্ত বিধিমালা এরই মধ্যে দেশের পরিবেশ রক্ষায় ও জনস্বার্থ সুরক্ষায় ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে সক্ষম হয়েছে। বর্তমানে ১৭টি পণ্যে পাটজাত মোড়ক ব্যবহৃত হচ্ছে। পাট আইন, ২০১৭ প্রণয়ন করা হয়েছে। আমরা বন্ধ পাটকলগুলো চালু করেছি।

প্রধানমন্ত্রী `জাতীয় পাট দিবস ২০১৮`-এর সার্বিক সাফল্য কামনা করেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here