২০ বছর বয়সী শাহিরা ইউসুফ হতে যাচ্ছেন ফ্যাশন দুনিয়ার পরবর্তী তারকা। লন্ডনে জন্ম-নেওয়া শাহিরা যেমন ফ্যাশন শোয়ের রানওয়েতে নতুন, তেমনি তিনিই প্রথম ব্রিটিশ ফ্যাশন ক্যাটওয়াক মডেল যিনি মাথায় হিজাব পরেন।

শাহিরা জানান, তার বয়স যখন ১৭ তখনই তাকে মডেলিং-এর প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তিনি রাজি হননি। তিনি মনে করেন, বয়স যখন কম থাকবে, তখন বাস্তব জ্ঞানও কম থাকবে। তাই বড়ো হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। নাহলে এই শিল্প গিলে খেতে পারে।

মৃদুভাষী শাহিরা ইউসুফ জানালেন, মডেলিং পেশায় আসার সময় তিনি নিজে কিছু সীমানা বেঁধে দিয়েছেন। এই সীমানা তিনি কাউকে অতিক্রম করতে দেবেন না।

তার টেস্ট শট-এর ছবির সবগুলিতে তাকে সর্বাঙ্গ ঢাকা দেখা গেছে। শাহিরার জন্ম লন্ডনে হলেও তার মা-বাবা এসেছেন সোমালিয়া থেকে।

তিনি বলেন, আমি চাই ফ্যাশন দুনিয়ার বাইরে সমাজ যেভাবে বদলে যাচ্ছে, ফ্যাশন দুনিয়ার ভেতরের সংস্কৃতিতেও একদিন পরিবর্তন আসবে।

শাহিরা ইউসুফ বিশ্বাস করেন, একদিন তার মতো আরও মুসলমান মেয়ে ফ্যাশন মডেলিং-এ আসবে।

শাহিরার এজেন্ট বিলি মেহমেট তার কোম্পানি `স্টর্ম`-এর হয়ে আরও ৫০ জন নবাগত ফ্যাশন মডেলের দেখাশোনা করেন।

তিনি জানালেন, ফ্যাশন দুনিয়াও এখন বদলে যাচ্ছে। তাদের ক্লায়েন্টরা এখন শুধু রূপসীদের চান না, তারা চান রূপের পাশাপাশি থাকবে মেধা। তারা চান মডেলরা হবে শিল্পী কিংবা সমাজকর্মী।

তবে এই প্রথা ভাঙার কাজে শাহিরা একা নন। তার মতো আরও ব্রিটিশ মুসলিম তরুণী, যারা হিজাব পরিধান করেন, তারা ফ্যাশন সম্পর্কে নানা ধরনের বক্তব্য দিচ্ছেন। টুইটার কিংবা ইন্সটাগ্রামে বিউটি ব্লগার হিসেবে নিয়মিত পোস্ট দিচ্ছেন।

মারিয়া ইদ্রিসি, আরেকজন মুসলামন মডেল সম্প্রতি এইচ অ্যান্ড এম-এর ফ্যাশন মডেল হয়েছেন।

উল্লেখ্য, এক হিসেব অনুযায়ী, মুসলমানদের পরিধান, যেমন হিজাব কিংবা আবায়ার মতো পোশাক ইত্যাদির বাজারের আকার ২০২১ সাল নাগাদ দাঁড়াবে ৩০ হাজার কোটি ডলারেরও বেশি। আর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোও এখন সেই বাজারকে ধরতে তৈরি হচ্ছে। স্পোর্টস সামগ্রী বিক্রেতা নাইকি এবছরের গোড়াতে তার প্রথম স্পোর্টস হিজাব বাজারে ছড়েছে। আর এটির মডেল হয়েছেন জাহ্‌রা লারি, প্রথম হিজাবধারী ফিগার স্কেটার।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here