বাঁধে উঠায় শিশুর আঙ্গুল কেটে দিলেন সভাপতি

0
148

শিশুর আঙ্গুল কেটে দিলেন হাওরের এক প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির (পিআইসি) সভাপতি। অন্যায় শুধু বাঁধে উঠা, গড়িয়ে পড়ে যাওয়া। তাই শাস্তি হিসেবে ৭ বছরের শিশুর ডান হাতের চারটি আঙ্গুল কেটে দিয়েছেন তিনি। জঘন্য এ কাজটি করেছেন তাহিরপুরের মহালিয়া হাওর পাড়ে ময়নাখালি বাঁধের ২৮নং পিআইসির সভাপতি অদুদ মিয়া। শনিবার বিকেলে বাঁধের কাছে এ ঘটনা ঘটে।

আহত শিশুর নাম ইয়াহিন মিয়া। সে তাহিরপুর উপজেলার শ্রীপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের সুলেমানপুর গ্রামের শাহানুর মিয়ার ছেলে। ইয়াছিন সুলেমানপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীর ছাত্র।

অদুদ মিয়ার বাঁধের উপর ওঠার অভিযোগে ইয়াছিনের ডান হাতের ৪টি আঙ্গুল কাঁচি দিয়ে কেটে দেয় পিআইসির সভাপতি অদুদ। আহত শিশুটিকে প্রথমে তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর উন্নত চিকিৎসার জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।

শিশুটির বাবা শাহানুর মিয়া ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার বিকেলে ইয়াহিন গরুর ঘাস কাটার জন্য মহালিয়া হাওর পাড়ে ময়নাখালি বাঁধের উপর দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় শিশুটির পা পিছলে গড়িয়ে নিচে পড়ে যায়। এ সময় নির্মাণাধীন বাঁধের ড্রেজিং কাজের সামান্য ক্ষতি হয়। পিআইসির সভাপতি অদুদ মিয়া বিষয়টি দেখতে পেলে ইয়াহিনের হাতে থাকা কাঁচি কেড়ে নিয়ে তার হাতের ৪টি আঙ্গুল কেটে দেন।

আহত শিশুটির বাবা শাহানুর মিয়া পিআইসির সভাপতি অদুদ মিয়ার বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। তবে এ বিষয়ে পিআইসি সভাপতি অদুদ মিয়া বলেন, ‘আমি ইয়াহিনকে আঘাত দেইনি। শিশুটি অন্য একটি শিশুর সাথে ঝগড়া করে তার হাতের আঙ্গুল কেটেছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here