নেপালের বিমান দুর্ঘটনায় স্বামী হারানোর শোক সামলাতে না পেরে গুরুতর অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন নিহত পাইলট আবিদ সুলতানের স্ত্রী আফসানা খানম। পরে চিকিৎসকরা জানান, তিনি ব্রেইন স্ট্রোক করেছেন।

পরিবারের সদস্যরা জানান, গতকাল সকাল ৯টার দিকে উত্তরার নিজ বাসায় গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন আফসানা। এর পর তাকে শেরেবাংলানগরের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরো সায়েন্সেস অ্যান্ড হসপিটালে নিয়ে যাওয়া হয়। সঙ্গে সঙ্গে আফসানা খানমের শারীরিক অবস্থা পর্যালোচনা করে চিকিৎসার জন্য একটি মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়। পরে বোর্ডের সিদ্ধান্তেই তার অপারেশন করা হয়।

হাসপাতাল থেকে ক্যাপ্টেন ওয়াহেদ উদ জামান আমাদের সময়কে জানান, আফসানাকে ক্যাপ্টেন আবিদের বড় ভাই হাসপাতালের যুগ্ম পরিচালক অধ্যাপক ড. বদরুল আলমের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। বর্তমানে তিনি নিবিড় পর্যবেক্ষণকেন্দ্রে (আইসিইউ) রয়েছেন। অবস্থার আগের চেয়ে উন্নতি হলেও এখনো শঙ্কামুক্ত নন।

স্বজনরা জানান, দুর্ঘটনার সংবাদ পেয়ে অজ্ঞান হয়ে পড়েছিলেন আফসানা। কোনোভাবেই বিশ্বাস করতে পারছিলেন না তিনি। পরে আবিদ বেঁচে আছেন শুনে একটু স্বাভাবিক হয়েছিলেন। কিন্তু পরদিনই যখন জানতে পারলেন আবিদ নেই, তখন থেকে একেবারেই ভেঙে পড়েন আফসানা।

গত ১২ মার্চ কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলার বিমানটি অবতরণের সময় ঘটে যাওয়া মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ৫১ জন। এদের মধ্যে পাইলট আবিদ, ফার্স্ট অফিসার পৃথুলা রশিদ, কেবিন ক্রু খাজা হোসেন ও শারমিন আক্তার নাবিলাসহ বাংলাদেশি ২৬ জন। তবে দুর্ঘটনার পর পাইলট আবিদ আহত অবস্থায় কাঠমান্ডুর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। কিন্তু পরদিন সকালে মারা যান পাঁচ হাজার ঘণ্টা ফ্লাইট চালানোর অভিজ্ঞতাসম্পন্ন এ পাইলট।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here