ক’দিন আগেই আনুষ্ঠানিক বিচ্ছেদ হয়েছে আলোচিত তারকা দম্পতি শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের। যদিও এর আগে থেকেই মুখ দেখাদেখি বন্ধ দু’জনের। তাই বিচ্ছেদের পর যে তারা দেখা করবেন- সেটা অনেকের ধারণার বাইরে ছিল। কিন্তু সবাইকে ভুল প্রমাণ করে শাকিবের সঙ্গে দেখা করলেন অপু বিশ্বাস। তাও আবার কলকাতায়। পুরোদমে শুটিং শুরুর আগে ছেলে আব্রাম খান জয়কে নিয়ে কয়েক দিনের জন্য ভারতে ঘুরতে গেছেন অপু। পরিকল্পনা অনুযায়ী কলকাতা হয়ে শিলিগুড়ি যাওয়ার আগে রবিবার সন্ধ্যায় জয়ের বাবা শাকিব খানের সঙ্গে দেখা হয় অপুর। ওই সময় কলকাতায় ‘ভাইজান এলো রে’ ছবির ফটোশুটে অংশ নেন শাকিব খান।

অনেক দিন পর ছেলেকে কাছে পেয়ে দারুণ খুশি হন তিনি। এ সময় তার সঙ্গে আরও ছিলেন ছবির নায়িকা শ্রাবন্তী ও পায়েল। জয়কে কোলে নিয়ে শাকিব খান এবং অপু বিশ্বাসের সঙ্গে আলাদা করে ছবিও তোলেন শ্রাবন্তী। সেই ছবিগুলো এখন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল। এসকে মুভিজের পেজে প্রথমে ছবিটি পোস্ট করা হয়। প্রতিষ্ঠানটি ‘ভাইজান এলো রে’ ছবিটি প্রযোজনা করছে।

জানা গেছে, দেড় ঘণ্টার এই সাক্ষাতে শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের মধ্যে কোনো কথা হয়নি! ফটোশুটে উপস্থিত লোকজনের সঙ্গে কথা বলে এ ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

শাকিব বলেন, ‘আমাদের মধ্যে এখন কোনো সম্পর্ক নেই। তাই অকারণে কথা বলার দরকার নেই। অতীত নিয়ে আর পড়ে থাকতে চাই না। তবে আমি চাই, অপু তার মতো করে ভালো থাকুক। কলকাতায় ছেলেকে কাছে পাওয়া আমার জন্য চমক ছিল।’

কীভাবে দেখা হলো? এমন প্রশ্নের উত্তরে শাকিব বলেন, ‘আমি তখন ছবি আর পত্রিকার ফটোশুট নিয়ে ব্যস্ত ছিলাম। আমার সঙ্গে ছিলেন শ্রাবন্তী ও পায়েল সরকার। এ সময় জানতে পারি, জয় তার মায়ের সঙ্গে কলকাতা থেকে শিলিগুড়ি যাচ্ছে। এরপর আমি অপুর সহযোগীর সঙ্গে যোগাযোগ করি। জয়ের আসার খবরে শ্রাবন্তী ও পায়েলসহ সেটের সবাই খুশি হয়। সন্ধ্যার দিকে জয় তার মায়ের সঙ্গে শুটিং স্পটে আসে। এখানে ঘণ্টা দেড়েক ছিল। ওকে শুটিং সেটে পেয়ে কেউ কোল থেকে নামাচ্ছিল না। এরপর জয়কে নিয়ে কেনাকাটা করতে চলে যাই।’

এক দশক ধরে বড় পর্দায় জুটি ছিলেন শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস। কাজ করেছেন ৭০টি ছবিতে। ২০০৮ সালে বিয়ে করে টানা নয় বছর গোপনে সংসার করেছেন। ২০১৭ সালের এপ্রিলে যখন বিয়ের ব্যাপারটি সামনে চলে আসে, তখন দুজনের মধ্যে টানাপোড়েন শুরু হয়। বন্ধ হয়ে যায় দেখাদেখি। একপর্যায়ে বিচ্ছেদ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here