স্মার্টফোনে এখন হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করেন না, এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া বেশ কঠিন। বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় এই মেসেঞ্জারে অন্যান্য মেসেঞ্জারের চাইতে তুলনামূলক অনেক বেশি গোপনীয়তা রক্ষা করা যায়। সম্প্রতি হোয়াটসঅ্যাপে বেশ কয়েকটি নতুন ফিচার যুক্ত হয়েছে। কিন্তু
এগুলো ছাড়াও যে হোয়াটসঅ্যাপে সাতটি গোপন ফিচার রয়েছে তা হয়তো জানেন না অনেকেই।

যেমন কোনও মেসেজ পড়লে অর্থাৎ সিন হলে ব্লু-টিক দেখায়। কিন্তু আপনি যে মেসেজটি পড়েছেন, তা বোঝাতে না চাইলে, ব্লু-টিক অপশনটি ডিজেবল করে রাখতে পারেন। অর্থাত ব্লু-টিক ডিজেবল করতে পারেন এভাবে- সেটিংস> অ্যাকাউন্ট> প্রাইভেসি> রিড রিসিপটস। রিড রিসিপটস অপশনটি ডিজেবল করে নিন। এই ফিচারটির ফলে আপনি কোনো মেসেজ পড়লেও রেসিপিয়েন্টের কাছে ব্লু-টিক দেখাবে না। কিন্তু আপনার মেসেজও অন্য কেউ পড়লে আপনি ব্লু-টিক দেখতে পারবেন না।

আগে হোয়াটসঅ্যাপে কেউ ইউটিউব লিঙ্ক পাঠালে, তা ইউটিউবে গিয়েই খুলতে হতো। কিন্তু এখন হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করার সময়ে একসঙ্গেই সেই ইউটিউব ভিডিও দেখা যাবে।

হোয়াটসঅ্যাপে ডিলিট অপশনটি সবারই জানা। ভুল করে মেসেজ পাঠিয়ে দিলে তা সাত সেকেন্ডের মধ্যে ডিলিট করে দিলে তা আর দেখা যেত না। এবার সেই সময়সীমা বেড়ে ৬৮ মিনিট হয়েছে।

হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে লাইভ লোকেশনও পাঠানো সম্ভব। ধরুন আপনি কোথাও গিয়েছেন, রাস্তা চিনছেন না। বন্ধুকে চ্যাটের মাধ্যমেই লোকেশন শেয়ার করতে পারবেন। অ্যাটাচ অপশনে গিয়ে লোকেশনে ক্লিক করুন। সেখান থেকে ক্লিক করুন শেয়ার লাইভ লোকেশনে। ১৫ মিনিট, এক ঘণ্টা বা আট ঘণ্টার জন্য সেই লাইভ লোকেশন আপনি সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির সঙ্গে শেয়ার করতে পারবেন।

অনেক সময়ে আমরা গুরুত্বপূর্ণ মেসেজ হারিয়ে ফেলি। এবার সেইগুলোকে আমরা স্টার দিয়ে মার্ক করে রাখতে পারি। এর জন্য একটি মেসেজে কিছুক্ষণ ধরে ক্লিক করে রাখতে হবে। একটি স্টার আইকন আসবে। সেখানে ক্লিক করতে হবে।

হোয়াটসঅ্যাপ মূলত একটি মোবাইল মেসেঞ্জার। কিন্তু ডেস্কটপেও সহজেই এই মেসেঞ্জার ব্যবহার করা যায়। হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাপে হোয়াটসঅ্যাপ ওয়েবের মাধ্যমে ডেস্কটপের কানেক্ট করা যায়। তবে এর জন্য একটি কিউআর কোড স্ক্যান করতে হয়। ডেস্কটপে হোয়াটটসঅ্যাপ ওয়েব বলে সার্চ করুন। সেখানে একটি কিউআর কোড দেখাবে। সেটি এবার মোবাইলের সঙ্গে স্ক্যান করুন। কিন্তু দুটি ডিভাইসেই যেন ইন্টারনেট কানেকশন থাকে। ডেস্কটপের কাছেই যেন মোবাইল সেটটি থাকে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here