জাতীয় পার্টির মহাসমাবেশে স্ত্রী রওশনের হাত ধরে নতুন উদ্দীপনায় শপথ নিলেন পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। মঞ্চে রওশনের হাত ধরে তিনি বলেন, ‘নতুন বাংলাদেশ গড়ব মোরা। নতুন করে আজ শপথ নিলাম।’ রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শনিবার সকাল ১০টা শুরু হওয়া দলটির মহাসমাবেশে প্রথমে বক্তব্য দেন রওশন। পরে তিনি এরশাদকে মঞ্চে আসার জন্য আহ্বান জানিয়ে একে অপরের হাত ধরে শপথ নেন। সারা দেশ থেকে আসা জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা তখন তুমুল আনন্দে স্লোগান দিতে থাকেন।

পরে বক্তব্যে এরশাদ বলেন, ‘মানুষ আমার কাছে বার্তা চায়। প্রথম বার্তা হচ্ছে, আমার ইতিহাস সৃষ্টি করব। আগামী নির্বাচনে জয়ী হয়ে সরকার গঠন করব। এ আমার বার্তা। আমরা প্রস্তুত। দেশ প্রস্তুত। ২৫-৩০ বছর আমরা ক্ষমতায় ছিলাম না। দুদল ক্ষমতায় ছিল। তারা জনগণকে কী দিয়েছে? অন্যায়-অবিচার। নারীদের লাঞ্ছনা, বেকারত্ব। জনগণকে তারা কিছুই দিতে পারে নাই। শুধু লম্বা লম্বা কথা।’

তিনি বলেন, ‘কাল উন্নয়নশীল দেশ হলো। অনেক চাকচিক্য। অনেক লাইট। অনেক বাজি পোড়ানো হলো। ঢাকার বাইরে গিয়ে দেখুন, দেশের মানুষের কী অবস্থা। তখন বুঝবেন, কতটুকু উন্নতি করেছেন, উন্নয়নশীল দেশ হয়েছে। খবরের কাগজ খুললেই খুন, নারী ধর্ষণ, শিশু হত্যা। শুধু হত্যা আর রক্ত। কোথাও শান্তি নেই। মানুষের জীবনের নিরাপত্তা নেই। শান্তি শুধু ঢাকায়। ঢাকার বাইরে শান্তি নেই। আমরা ক্ষমতায় এলে প্রতিটি গ্রামে, প্রতিটি ইউনিয়নে মানুষকে শান্তি দেব।’ এরশাদ নিজেও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত।

মহাসমাবেশের কথা উল্লেখ করে এরশাদ বলেন, ‘এত বড় জনসমুদ্র আর কখনো দেখিনি। ঢাকার রাস্তা অবরুদ্ধ। সব রাস্তা বন্ধ। মানুষ চলতে পারছে না। এর মধ্য দিয়ে প্রমাণ করেছে জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় যাওয়ার শক্তি অর্জন করেছে।’ তিনি নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, ‘উই আর রেডি অর নট?’ পরক্ষণে তিনিই বলেন, ‘উই আর রেডি।’

রওশন এরশাদ তার বক্তব্যে বলেন, ‘আজকের এ মহাসমাবেশে মনে হচ্ছে, আমরা আগামীতে আর কারও ক্ষমতায় যাওয়ার সিঁড়ি হবো না। জাতীয় পার্টি যথেষ্ট শক্তিশালী দল। শেখ মুজিবুর রহমান দেশকে স্বাধীন করেছেন। এরশাদ জনগণকে স্বাধীনতার স্বাদ দিয়েছিলেন। মানুষ এখন পরিবর্তন চায়। এর জন্য জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় আসতে হবে।’

সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন পার্টির কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের, দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, কাজী ফিরোজ রশীদ, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, মশিউর রহমান, সংসদ সদস্য আবু হোসেন প্রমুখ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here