ইউরোপের সবচেয়ে বিপজ্জনক আগ্নেয়গিরি মাউন্ট এট্‌না। আর সেটা ধীরে ধীরে সমুদ্রের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। আর এতে নানা ধরনের আশঙ্কা করছেন তারা

ব্রিটেনের ওপেন ইউনিভার্সিটির ভূবিজ্ঞানের গবেষক ড. জন মার্ফি বলছেন, সিসিলি দ্বীপের ওপর এই আগ্নেয়গিরি বছরে ১৪ মিলিমিটার করে ভূমধ্যসাগরের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। মাউন্ট এট্‌নার এই সরে যাওয়ার দিকে সতর্কভাবে নজর রাখতে হবে। কারণ এর ফলে নানা ধরনের ঝুঁকি তৈরি হওয়ার শঙ্কা রয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত শঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই বলেও জানিয়েছেন তিনি।

সাধারণ বিবেচনায় বছরে ১৪ মিলিমিটার কিংবা ১০০ বছরে ১ দশমিক ৪ মিটার সরে যাওয়া খুব বেশি বলে মনে নাও হতে পারে। কিন্তু ঘুমন্ত আগ্নেয়গিরি, যেগুলোর মধ্যে আগে এ ধরনের প্রবণতা দেখা গেছে, সেগুলোর কারণে মারাত্মক ভূমিধসসহ নানা ধরনের সঙ্কট তৈরি হয়েছে বলে জানান ভূবিজ্ঞানীরা।

ড. জন মার্ফি মাউন্ট এট্‌না সম্পর্কে গবেষণা চালিয়েছেন প্রায় ৫০ বছর ধরে। এ গবেষণায় তিনি পর্বতটির নানা স্থানে জিপিএস স্টেশন বসিয়েছেন। সামান্য নড়াচড়া হলেও এই স্টেশনের যন্ত্রে তা ধরা পড়বে।

আর এসব যন্ত্রের গত ১১ বছরে উপাত্ত থেকেই বিজ্ঞানীরা বলছেন যে, মাউন্ট এট্‌না এখন দক্ষিণ-পূর্বমুখী হয়ে একটু একটু করে ভূমধ্যসাগরের দিকে সরে যাচ্ছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here