ভালুকায় ভবনে হঠাৎ বিস্ফোরণ, কুয়েট ছাত্র নিহত

0
163

ময়মনসিংহের ভালুকায় একটি একটি ছয়তলা ভবনের তৃতীয় তলায় বিস্ফোরণে একজন নিহত হয়েছেন, আহত হয়েছেন আরও তিনজন। শনিবার রাত দেড়টার দিকে মাস্টারবাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে, যা রাজধানী থেকে বেশি দূরে নয়। তাই জঙ্গি সন্দেহে বাড়িটি ঘেরাও করে রাখে পুলিশ। যদিও পরবর্তীতে জানানো হয় রান্না ঘরের গ্যাসের সিলিন্ডার থেকেই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে।

জানা গেছে, রাত দেড়টার দিকে সবাই যখন ঘুমিয়ে, তখন বিকট শব্দের বিস্ফোরণে ভালুকার মাস্টারবাড়ি এলাকা কেঁপে উঠে। এতে ছয়তলা ভবনটির তৃতীয় তলার একটি কক্ষের পুরোটাই বিধ্বস্ত হয়েছে। এ ঘটনায় নিহত হন বগুড়ার তৌহিদ। দগ্ধ হন- সিরাজগঞ্জের শাহীন, নওগাঁর হাফিজ ও মাগুরার দীপ্ত সরকার। এদের মধ্যে হাফিজ ও দীপ্ত সরকারকে ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ভর্তির পর ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। আর শাহীনকে আগেই ঢাকায় পাঠানো হয়।

হতাহতরা সবাই খুলনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (কুয়েট) থেকে সদ্য মাস্টার্স শেষ করেছেন। মাস্টারবাড়ি ইসকয়ার ইন্ডাস্ট্রিজে তারা ইন্টার্ন করতে ১০ দিন আগে বাসাটি তারা ভাড়া নেন। একমাস আগে ভবনটি উদ্বোধন করা হয়। ভবনের ৪৪টি ফ্ল্যাটের মধ্যে পাঁচটিতে লোকজন উঠেছিল।

এদিকে ঘটনার খবর পেয়েই বোমা ডিস্পোজাল টিমের সদস্যরা ভালুকা যান। পুলিশ-র‌্যাবের পাশাপাশি ঘটনাস্থলে ছুটে যান ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা।

জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) জয়িতা শিল্পী জানান, রান্না ঘরের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ হয়ে হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। এটি কোনো বোমা বিস্ফোরণ কিংবা জঙ্গি সংক্রান্ত ঘটনা নয়। এদিকে দুর্ঘটনায় নিহত তৌহিদের ছিন্নভিন্ন মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

বিস্ফোরণ এতটাই ভয়াবহ ছিল যে ওই ফ্লোরের দুটি দেয়াল ভেঙে পড়ে। জানালার কাচ ও পার্টিশন ভেঙে চুরমার হয়ে যায়। একটি জানালার গ্রিল বিস্ফোরণের ধাক্কায় ছিটকে পড়ে দূরে। ভবনের মালিক আব্দুর রাজ্জাক (৫২) ঝুট কাপড়ের ব্যবসা করেন, থাকেন ঢাকায়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here