নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে শীতলক্ষ্যা নদীতে শুক্রবার বাল্কহেডের ধাক্কায় ডুবে যাওয়া নৌকার পাঁচ যাত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তারা হলেন- ঢাকার ধোলাইপাড় এলাকায় নাসিরউদ্দিনের ছেলে জুতা ব্যবসায়ী তুষার আহমেদ, একই এলাকার জয়নাল আবেদীনের ছেলে হার্ডওয়্যার ব্যবসায়ী সাইফুল ইসলাম রিপন বাবু, কদমতলী থানার দক্ষিণ দনিয়া এলাকার আজিজুল খানের ছেলে ব্যবসায়ী লতিফ খান, রূপগঞ্জ থানার তারাব পৌরসভার মাসাবো এলাকার সিরাজুল ইসলামের ছেলে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের কাস্টমস কর্মকর্তা জাসিম খান এবং পূর্ব ধোলাইপাড় বাজার এলাকার রবিউল মিয়ার ছেলে টেইলার্স ব্যবসায়ী শরীফ।

শনিবার রাতে ও রোববার সকালে দক্ষিণ রূপসীসহ আশপাশের এলাকায় লাশ ভেসে উঠলে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিরা লাশগুলো উদ্ধার করে।

রূপগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রফিকুল ইসলাম জানান, শুক্রবার রাতে ডেমরা ঘাট থেকে নৌকা ভাড়া করে শীতলক্ষ্যা নদীতে নৌ ভ্রমণে বেরিয়েছিলেন ১৪ বন্ধু। রাত সাড়ে ৮টার দিকে তারাব পৌরসভার দক্ষিণ রূপসী এলাকায় একটি বালুবাহী বাল্কহেডের ধাক্কায় তাদের নৌকাটি ডুবে যায়। এ সময় মাঝিসহ নয় জন সাঁতরে পাড়ে ফিরলেও পাঁচ জনের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। তাদের খোঁজে ডেমরা ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ ওই রাতেই নদীতে তল্লাশি শুরু করে। কিন্তু শনিবার রাত ৯টা পর্যন্ত কোনো লাশ না পেয়ে উদ্ধার কাজ স্থগিত করা হয়। পরে শনিবার রাত ও আজকে লাশগুলো ভেসে ওঠে। উদ্ধার হওয়া পাঁচজনের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপ-সহকারী পরিচালক মামুনুর রশিদ বলেন, লাশগুলো স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আর কেউ নিখোঁজ না থাকায় উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here