ব্যবহারকারীদের বিভিন্ন ব্যক্তিগত তথ্য কাজে লাগিয়ে রাজনৈতিক ও প্রাতিষ্ঠানিক ফায়দা লোটার কেলেঙ্কারিতে সোস্যাল নেটওয়ার্ক জায়ান্ট ফেসবুকের পাশাপাশি নাম উঠে আসছে আরও অনেকের। ফেসবুক ব্যবহারকারীদের তথ্য কাজে লাগিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পের পক্ষে কাজ করা লন্ডনভিত্তিক প্রতিষ্ঠান কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার পর এবার এ কেলেঙ্কারিতে নাম এসেছে কানাডিয়ান কোম্পানি অ্যাগ্রেগেটেল আইকিউয়ের।

সম্প্রতি ফেসবুক ও কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার অপকর্ম ফাঁস করা ব্রিটিশ প্রতিষ্ঠানটির সাবেক কর্মী ক্রিস্টোফার উইলি সোমবার জানান,
যুক্তরাস্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোটারদের প্রোফাইল তৈরির জন্য ‘রিপন’ নামে একটি সফটওয়্যার তৈরি করেছিল অ্যাগ্রেগেটেল।

এর আগে ২০১৪ সালে একটি পারসোনালিটি কুইজের মাধ্যমে পাঁচ কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্য হাতিয়ে ট্রাম্পের প্রচারণায় কাজে লাগায় কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা। কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষকের তৈরি করা একটি অ্যাপের মাধ্যমে চালানো ওই কুইজে অংশ নিয়েছিলেন ২ লাখ ৭০ হাজার ফেসবুক গ্রাহক। আর তাদের বন্ধুতালিকা থেকে পাঁচ কোটি ফেইসবুক অ্যাকাউন্টধারীর ব্যক্তিগত হাতিয়ে নেওয়া হয়েছিল ওই অ্যাপের মাধ্যমে।

এ নিয়ে জবাবদিহিতার জন্য সম্প্রতি ব্রিটিশ পার্লামেন্টে হাজির হতে ফেসবুক প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ অনিহা জানান। কিন্তু এর কয়েক মিনিট পরই তদন্ত কমিটির কাছে অ্যাগ্রেগেটেলের বিরুদ্ধে অভিযোগের পক্ষে তথ্য-প্রমাণ তুলে ধরেছেন উইলি। তিনি বলেন, ‘পাবলিক ডোমেইনে এখনও স্পষ্ট প্রমাণ আছে, এআইকিউ প্রকৃতপক্ষে ‘রিপন’ তৈরি করেছিল, যে সফটওয়্যার ফেসবুক ডেটা থেকে প্রণীত অ্যালগরিদম ব্যবহার করেছিল।’

যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিন রাজ্যের শহর রিপনে ১৮৫৪ সালে রিপাবলিকান পার্টির প্রতিষ্ঠা হয়। জাতীয় নির্বাচন উপলক্ষে এই নামে তৈরি করা সফটওয়্যারটির মাধ্যমে ভোটার ডেটাবেজ, নির্দিষ্ট ভোটারদের টানতে কর্মকৌশল, প্রচার কার্যক্রম, তহবিল সংগ্রহ এবং সমীক্ষা পরিচালনার কাজ করে ট্রাম্প শিবির।

এ বিষয়ে অ্যাগ্রেগেটেল আইকিইউয়ের কাছ থেকে এখনও কোনো বক্তব্য আসেনি। তবে এর আগে এ ধরনের অভিযোগ সম্পর্কে কোম্পানিটির পক্ষ থেকে সব অস্বীকার করা হয়।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here