পবিত্র কোরআনে কেবলই আল্লাহ তায়ালার কালাম। অতএব যে আল্লাহ ও কিয়ামত দিবসের ওপর ইমান রাখে, তার ওপর কোরআনে কারিমের প্রতি সম্মান প্রদর্শন ও অপমান থেকে তা রক্ষা করা একজন মুমিনের অবশ্যই পালনীয়। কোনো কোরআনের কপি যদি পুরনো হয়, ছিড়ে যায় ও তার পৃষ্ঠাগুলো ব্যবহার অনুপযোগী হয়, তাহলে এমন জায়গায় রাখা যাবে না- যেখানে অমর্যাদা হয়, ময়লা-আবর্জনায় লুটোপুটি খায়, মানুষ বা জীব-জন্তুতে পিষ্ট হয়। পুরনো নষ্ট হয়ে যাওয়া কিংবা ছিঁড়ে যাওয়া কোরআন ফেলে দেয়ার রীতি নেই পাকিস্তানে। তাই সেগুালো নির্দিষ্ট জায়গায় ‌কবর দেয়া হয়!

শুধু পবিত্র কোরআনে কারিম নয়, হাদিস গ্রন্থ থেকে শুরু করে, কায়দা, আমপাড়া এমনকি ইসলামি বই-পুস্তকের যেখানে আল্লাহ কালাম লিপিবদ্ধ সেগুলোর ক্ষেত্রেও একই হুকুম। তবে পুরনো কোরআন যদি বাঁধাই করে পাঠ উপযোগী করা সম্ভব হয়, তাহলে পরিত্যক্ত না রেখে ব্যবহার করাই শ্রেয়।

কোরআনকে দাফন করা হচ্ছে

এদিকে পুরাতন বা ছিঁড়ে যাওয়া কোরআনকে কোথায় ফেলা হবে, পাকিস্তানে বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আবার এ নিয়ে দেশটির একটি স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান নিয়মিত কাজ করে। তারা বাড়ি বাড়ি গিয়ে ব্যবহারের অনোপযোগী কোরআন সংগ্রহ করে। কেউ কেউ আবার তাদের কাছেই এসে দিয়ে যান। পরে সেগুলোকে এমন স্থানে কবর দেয়া হয়, যেখানে মানুষ হাঁটে না। কোরআন কবরস্থানের কর্ণধার ৭০ বছর বয়সী শাবাজই একটি জমি দান করেছেন।

তিনি বলেন- ছেলেদের জন্য জমিটি কিনেছিলাম, যাতে তারা বাড়ি বানাতে পারে। সেই জমিরই অর্ধেকটা এই করস্থানের জন্য দান করেছি। সন্তানদের নিয়ে আমি নিজের হাতেই কোরআনের জন্য কবর খোঁড়ি। আরো কিছু স্বেচ্ছাসেবক আমাদের সাহায্য করেন।

তিনি জানান, একটা কবর খোঁড়তে ১০ দিনও সময় লেগে যায়। পরে পরিষ্কার সাদা কাপড় দিয়ে কবরটি মোড়ানো হয়। ব্যাগ বা বস্তায় ভরে ভরে ছেঁড়া কোরআনগুলো কবরে নামানো হয়। সেগুলো সাঁরিবদ্ধভাবে সাজিয়ে কবর দেয়া হয়।

তবে পুরনো কোরআনের বিষয়ে আলেমরা বলেন- এসব ভালো করে পুড়ে ছাই করা জরুরি, কারণ অনেক সময় পোড়ানোর পরও হরফ অবশিষ্ট থাকে। পুরনো কোরআন দাফন করা অপেক্ষা পোড়ানোই উত্তম। কারণ দাফনের পর কখনো ওপর থেকে মাটি সরে গেলে সেটির অসম্মান হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই পোড়ানো ও পোড়ানোর পর ছাইগুলো দাফন করা অধিক শ্রেয়।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here