শুধু বর্তমান অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলে নয়, একইসঙ্গে পুরো বিশ্বে যে ক’জন মেধাবী ও বিদ্ধংসী ক্রিকেটার আছেন তার মধ্যে ডেভিড ওয়ার্নার অন্যতম। টেস্ট-ওয়ানডে বা টি-টোয়ান্টি তিন ফরমেটেই অনেকবার দেখা গেছে তার ব্যাটিং ঝলক। কিন্তু সদ্য সমাপ্ত কেপটাউন টেস্টে বল টেম্পারিং কাণ্ড যেন এক ঝটকায় মেধাবী এই ব্যাটসম্যানকে ছিটকে ফেললো ক্রিকেট থেকে অনেক দূরে। হারিয়েছেন সহ-অধিনায়কত্ব, খ্যাতি, সম্মান, পেয়েছেন এক বছর নিষেধাজ্ঞা। তাই অভিমানি ওয়ার্নার জানিয়েছেন, ভবিষ্যতে আর কখনোই হয়তো অস্টেলিয়ার হয়ে মাঠে নামবেন না তিনি। অর্থাৎ এখানেই ইতি টানতে পারেন ক্যারিয়ারের।

শুক্রবার সিডনিতে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলার সময় শিশুর মতো কাঁদছিলেন ওয়ার্নার। বল টেম্পারিং কাণ্ডে নিজের অপরাধ স্বীকার করে ওয়ার্নার বলেন, ‘কেপটাউনের নিউল্যান্ডসে তৃতীয় দিনে যা ঘটেছে, তার সম্পূর্ণ দায় আমার। নিষেধাজ্ঞা কাটার পরও আমি অস্ট্রেলিয়ার হয়ে আর মাঠে নাও নামতে পারি। আমি অস্ট্রেলীয় ক্রিকেট ভক্তদের কাছে ক্ষমা চাই।’

যদিও সংবাদ সম্মেলনে বেশ কিছু প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে গেছেন এই ব্যাটসম্যান। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নেবেন কি না, এমন কোনো প্রশ্নের সরাসরি কোন উত্তর না দিলেও তিনি জানান, আপাতত তিনি পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাবেন।

এদিকে সংবাদ সম্মেলন শেষ হওয়ার পর এক টুইট বার্তায় ওয়ার্নার বলেন, ‘অনেক প্রশ্নেরই জবাব দিতে পারিনি। পরিস্থিতি বুঝতে পারছি। সময় মতো সব প্রশ্নের জবাব দিতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করব। কিন্তু এসবের জন্য ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার কিছু আনুষ্ঠানিকতা রয়েছে।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here