চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসেই ডানি উইলিসের সঙ্গে বিয়ের পিঁড়িতে বসার কথা রয়েছে অজি দলের সাবেক অধিনায়ক স্টিভ স্মিথের। তবে বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারির দায়ে অভিযুক্ত হওয়ায় স্মিথের ওপর বেশ কিছুটা চটেছেন তার প্রেমিকা।

গণমাধ্যমের তথ্যমতে, সম্প্রতি ডানি উইলিসকে আরো ফুসকে দিচ্ছে অজি ক্রিকেট ভক্তরাও। গতকাল ডানি উইলিসের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে বেশকিছু ফলোয়ার ডানি উইলিসকে স্মিথের সঙ্গে সম্পর্ক ভেঙে ফেলার কথা বলেছেন। তারা বলেন- মিথ্যুক এ ক্রিকেটারকে আপনার জীবনসঙ্গী করে নেয়া ঠিক হবে না। অধিকন্তু আপনি একজন আইনজীবী, আপনার সব সময় সত্যের পথে চলা উচিত।

২০১১ সালের শুরুতে স্মিথের সঙ্গে প্রথম পরিচয় হয় ডানি উইলিসের। ম্যাককারি বিশ্ববিদ্যালয়ে আইনে পড়তে থাকা এ ছাত্রীকে দেখে প্রথমেই কিছুটা দুর্বল হয়ে যান স্মিথ। নিজ থেকেই প্রেমের প্রস্তাবটি দিয়েছেন উইলিসকে। অবশ্য উইলিসও দুর্বল ছিলেন স্বনামধন্য এ ক্রিকেটারের প্রতি। ফলে প্রেমের সম্পর্কে যেতে বেশিক্ষণ লাগেনি তাদের। খেলার ফাঁকে ফাঁকে চুটিয়ে প্রেম করার সঙ্গে সঙ্গে গত বছর যুক্তরাষ্ট্রে আংটি বদলও সেরেছেন তারা।

কিন্তু এমন বিপদের মুখে এবং তার বান্ধবীর বিমুখতায় কি শেষ পর্যন্ত তাদের প্রণয়ে জড়ানো হবে না? ভেঙে যাবে চূড়ান্ত রূপ নিতে যাওয়া এ সম্পর্কটি? এমনই প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে জনমনে।

এর আগে চলমান দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম অস্ট্রেলিয়া টেস্টে বল টেম্পারিংয়ের ঘটনা ঘটান স্মিথ। তার পরামর্শে ক্যামেরন ব্যানক্রফট হলুদ রঙের রিবন দিয়ে বল বিকৃতির চেষ্টা করেন। পরে টিভি ফুটেজে এটি ধরা পড়লে সংবাদ সম্মেলনে বিষয়টি স্বীকার করে নেন স্মিথ। এ অপরাধের দায়ে আইসিসি তাকে এক ম্যাচ নিষিদ্ধ করে। এরপর অস্ট্রেলীয় ক্রিকেট বোর্ড এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ ঘোষণা করে স্মিথসহ দলের সহঅধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারকে। ব্যানক্রফটকেও ৯ মাসের জন্য ব্যান করা হয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here