বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেফতার ও তল্লাশির নামে বিাড়ি-বাড়ি গিয়ে পুলিশি হয়রানির প্রতিবাদে নিজের ভোটের প্রচারণা স্থগিত করেছেন খুলনা সিটি নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু। আজ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে তিনি প্রচারে নামেননি।

সকালে নজরুল ইসলাম মঞ্জু বলেন, গতকাল রাত আটটা থেকে বৃহস্পতিবার ভোর পাঁচটা পর্যন্ত নগরজুড়ে পুলিশ ও ডিবির সদস্যরা ধানের শীষের নির্বাচনী প্রচারণায় জড়িত বিভিন্ন পর্যায়ের ১৯ নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে। এ ছাড়া অনেক নেতা-কর্মীর বাড়িতে তল্লাশির নামে হয়রানি করা হয়েছে। তাদের পরিবারের সদস্যদের হুমকি দেওয়া হয়েছে-নির্বাচনের কাজে যুক্ত থাকলে পরিণতি হবে ভয়াবহ। এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশন কার্যকর কোনো ব্যবস্থা না নেওয়া পর্যন্ত নির্বাচনী প্রচারণা স্থগিত থাকবে।

মঞ্জুর অভিযোগ, আওয়ামী লীগ প্রার্থী প্রতিনিয়ত নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করছেন। তিনি সরকারি কর্মকর্তা ও যারা ভোটের দিন প্রিসাইডিং কর্মকর্তা হিসেবে থাকবেন, তাদের নিয়ে বৈঠক করেছেন। এসব ব্যাপারে নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে একাধিক অভিযোগ করা হলেও কোনো সুফল পাওয়া যায়নি। শুধু তা-ই নয়, যারা বিএনপির পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিচ্ছেন, তাদেরও আটক বা গ্রেফতার করা হচ্ছে।

তবে মঞ্জুর অভিযোগ অস্বীকার করে খুলনা নগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার এস এম কামরুল ইসলাম বলেন, ডিবি এখনো কাউকে গ্রেফতার করেনি। ভয়ভীতি দেখানোর প্রশ্নই ওঠে না।

তবে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের (কেএমপি) অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (গণমাধ্যম) সোনালী সেন বলেন, গতকাল অভিযান চালিয়ে পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা আছে। ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগ সত্য নয়।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here