যৌনকর্মীর সঙ্গে প্রথমে ফেসবুকে পরিচয়। এরপর ধীরে ধীরে তা ঘনিষ্ঠতায় পরিণত হয়। অতঃপর প্রেমের অভিনয়ে তার সর্বস্ব লুট করে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে এক যুবকের বিরুদ্ধে। ভারতের শেওড়াফুলি গরবাগান যৌনপল্লীতে ঘটেছে এমন ঘটনা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ফেসবুকে হুগলির শেওড়াফুলি গরবাগান যৌনপল্লীর এক যৌনকর্মীর সঙ্গে আলাপ করেন শেখ রাজ। হাওড়ার বাসিন্দা সুরজ ওই যৌনকর্মীকে জানায়, তিনি তামিলনাড়ুতে জুয়েলারির দোকানে কাজ করেন। ফেসবুকের পরিচয়ের পর ওই পল্লীতে যৌনকর্মীর ঘরে যাতায়াত শুরু করেন তিনি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম কলকাতা টুয়েন্টিফোর’র প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই যৌনকর্মীর দাবি, শেখ রাজ তাকে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দেন। অন্যান্য দিনের মতো কয়েকদিন আগেও সন্ধ্যাবেলা যৌনকর্মীর ঘরে আসেন অভিযুক্ত। সেই সময় হঠাৎ ভারি কোনো বস্তু দিয়ে যৌনকর্মীর মাথায় আঘাত করেন তিনি। তারপর যৌনকর্মী অচৈতন্য অবস্থায় থাকাকালীন তার ঘরের আলমারি খুলে নগদ টাকা ও গয়না মিলিয়ে প্রায় ১৫ লাখ টাকার মালপত্র নিয়ে পালিয়ে যান ওই যুবক।

ঘটনার পরে পল্লীর বাসিন্দারা যৌনকর্মীর ঘরে ঢুকলে তাকে অচৈতন্য অবস্থায় দেখতে পান। তারপর ওই যৌনকর্মীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান। বর্তমানে তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন। অন্যদিকে, ঘটনার পর থেকেই পলাতক রয়েছেন অভিযুক্ত যুবক শেখ রাজ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here