টাঙ্গাইলের কান্দাপাড়া যৌনপল্লী। দেশের অন্যতম এ পল্লীটিতে মোট ৮০০টি কক্ষ রয়েছে। সেখানে কাজ করেন ৯ শতাধিক যৌনকর্মী। তাদের মধ্যেই একজন হাসি। বয়স ১৭।

এই পল্লীতে থাকা যৌনকর্মীদের কমপক্ষে ১০ থেকে ১৫ জন খদ্দেরের সঙ্গে যৌনমিলন করতে হয়। চলুন দেখে নেয়া যাক পল্লীতে কেমন কাটে তার জীবন।

নিজের কক্ষে স্বামীর সঙ্গে হাসি। এই পল্লীর অনেকেই হাসির মতো একজন স্বামী কিংবা প্রেমিক খুঁজে নেন। তারা পল্লীর বাইরে বসবাস করলেও মাঝে মাঝে এসে যৌনমিলন কিংবা টাকা নিয়ে যান তাদের নিরাপত্তা দেয়ার জন্য। ছবি: রয়টার্স।

পল্লীর কর্মীদের মধ্যে ওরাডিক্সন জাতীয় ঔষধ গ্রহণের প্রবণতা অনেক বেশি। নিজেকে স্বাস্থ্যবান করে খদ্দেরের চোখে পড়ার জন্য এমন কাজ করেন তারা। কোনো প্রেসক্রিপশন ছাড়া যেকেউ এই ঔষধ নিতে পারেন।

ক্ষতিকর হলেও ওরাডিক্সন খেয়ে বেশি আয় করতে পারেন যৌনকর্মীরা। ছবি: রয়টার্স।

এখানে খদ্দেররা মাত্র ৫০ টাকার বিনিময়েও যৌন মিলন করতে পারেন। পল্লীতে এমন এক খদ্দেরের সঙ্গে খুনসুটি করছেন হাসি। ছবি: রয়টার্স।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here