ভারতের পাঞ্জাবের দোরহার চানকোইয়ান খুর্দ গ্রাম। এই গ্রামে কোনও প্রাপ্তবয়স্ক যুবক যুবতী প্রেম করে বিয়ে করতে পারেন না। সেই অধিকারই নেই তাদের। এ গ্রামের পঞ্চায়েত এমনই এক নির্দেশিকা জারি করেছে সে গ্রামের তরুণ তরুণীদের জন্য।

পরিষ্কার বলে দেয়া হয়েছে, কোনও রকম প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলা যাবে না। নিজের পছন্দে কেউ বিয়েও করতে পারবে না। যদি সেরকম সম্পর্ক তৈরি হয়, তার জন্য কড়া শাস্তি রয়েছে। এমনকি গ্রামেরই এক যুবক যুবতী এরকম সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে বিয়ে করতে চায়, সেই দুটি পরিবারকে কার্যত একঘরে করে দেন পঞ্চায়েতের মাথারা।

এ বিষয়ে সতর্ক করা হয় বাবা মায়েদেরও। যাদের একঘরে করা হয়, তাদের সঙ্গে যাবতীয় সামাজিক সম্পর্ক ছিন্ন করা হয়। প্রেমজ বিয়ে করার অপরাধে কোনও দোকানি বা ফেরিওয়ালার প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে তাদের বাড়িতে। এমনকি গ্রামের বাসস্টান্ড, জনবহুল এলাকায় এই ঘটনার কথা লিখিত আকারে ছাপিয়ে তা পোস্টার করে বিলি করা হয়। আটকে দেয়া হয় বিভিন্ন জায়গায়। যাতে সকলের নজরে পড়ে এই ঘটনা।

তবে পঞ্চায়েতের একার উদ্যোগে এই অদ্ভুত নিয়ম প্রতিষ্ঠিত হয়নি। ওই দুই যুবক যুবতীর প্রেমজ বিয়ের পরেই দুই পরিবারে পঞ্চায়েতে আসে। এরকম কোনও নিয়ম বলবত্‍ করা না হলে ওই দম্পতিকে পুড়িয়ে ফেলা হবে বলে হুঁশিয়ারি দেয়া হয়।

এই নিয়ম সমাজের ভালোর জন্য দাবি করেছেন পঞ্চায়েতের সদস্যরা। তবে এই নিয়মে কার ঠিক কোন ভালো হবে বলে তারা দাবি করছেন, তার কোনও সদুত্তর ছিল না পঞ্চায়েতের কাছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here