পল্লী চিকিৎসক সোবহান সরদার। বছর আটাশের এই যুবক নড়াইল সদর উপজেলার শেখহাটি ইউনিয়নের শেখহাটি গ্রামের মৃত আব্দুর ছাত্তার সরদারের ছেলে। দীর্ঘদিন ধরে একই এলাকার এক কলেজছাত্রীর সঙ্গে ছিল তার প্রেম। একপর্যায়ে ওই তরুণী বিয়ে করার কথা বললে বিভিন্ন অজুহাতে এড়িয়ে যান প্রেমিক। উপায় না দেখে পরিবার তাকে অন্যত্র বিয়ে দেয়। এরপর থেকে সোবহান তার প্রেমিকাকে স্বামীর সংসার ত্যাগ করাতে বিভিন্ন আশ্বাস দিতে থাকেন।

একপর্যায়ে বিয়ের আশ্বাস পেয়ে স্বামীর সংসার ছেড়ে এসে প্রেমিক সোবহানের হাত ধরেন ওই তরুণী। গত বছর থেকে বিয়ে করে তারা গোপনে বসবাসও করতে থাকেন। কিছুদিন পর ভুক্তভোগী তরুণী কাবিননামা চাইলে সোবহান দেখাতে অপারগতা প্রকাশ করেন। কিন্তু বসে থাকেননি ওই তরুণী। খোঁজখবর নিয়ে জানতে পারেন, তাদের বিয়ের বিষয়টি ছিল আসলে সাজানো নাটক।

এ ঘটনার পর বিভিন্ন চাপের মুখে গত ২৪ এপ্রিল ভোরে প্রেমিকাকে নিয়ে যশোরের অভয়নগর দিঘিরপাড় কাজী অফিসে গিয়ে বিয়ে করেন সোবহান। কিন্তু বাসর রাতেই স্ত্রীকে রেখে পালিয়ে যান স্বামী। তবে বিয়ের বিষয়টি নিশ্চিত হতে বিবাহ রেজিস্টার মাওলানা মো. নাজিরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি সত্যতা নিশ্চিত করেন। বলেন, ‘আমার কাছে তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। তবে কাবিননামার কপি পেতে সময় লাগবে।’

স্ত্রীর মর্যাদা পেতে ভুক্তভোগী ওই তরুণী দ্বারে দ্বারে ঘুরলেও ভয়ে মামলা করতে সাহস পাচ্ছেন না। বিষয়টি মিমাংসা করতে স্থানীয় মোড়লরাও অপারগতা প্রকাশ করেছেন। তাদের অভিযোগ, স্বামীর ঘর ছেড়ে প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়ে গিয়ে ওই তরুণী অন্যায় করেছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here