আমাদের দেশে ব্যাচেলর বাসা ভাড়া পেতে কতো যে বিড়ম্বনায় পড়তে হয় তা কেবল ভুক্তভোগীরাই জানেন। বাসা পেলেও আরোপ করা হয় নানান শর্ত। অতিরিক্ত টাকাও গুণতে হয়। কিন্তু যুক্তরাজ্যে টাকা-পয়সা ছাড়াই বাসাভাড়া দেয়া হয়। শুধু বিনিময়ে নেয়া হয় যৌন সেবা ও ভালোবাসা।

দেশটিতে সমকামী যৌন সম্পর্কের বিনিময়ে বাসা ভাড়া দেয়ার প্রস্তাব দিয়ে বিজ্ঞাপন দেন বাড়ির মালিকরা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে এই ধরনের বিজ্ঞাপন দেখা গেলেও এরই মধ্যে তা সরিয়েও নেয়া হয়েছে।

যুক্তরাজ্যের যৌন অপরাধ আইন ২০০৩ অনুযায়ী যৌন সেবার বিনিময়ে বাড়ি ভাড়ার প্রস্তাব দেওয়া অবৈধ হলেও এই বিজ্ঞাপনগুলো প্রকাশিত হচ্ছে ফেসবুক, ক্লাসিফায়েড বিজ্ঞাপন প্রকাশকারী মার্কিন সাইট ক্রেইগলিস্ট ও বাড়ি ভাড়ার বিজ্ঞাপনী সাইট রুমবাডিজের মতো প্ল্যাটফর্মে।

‘হাউজবয়েজ’ বা ‘লিভ-ইন পারসোনাল অ্যাসিস্ট্যান্টস’ চেয়ে পুরুষদের দেয়া ওই বিজ্ঞাপনগুলো ফেসবুকসহ বিভিন্ন সাইটে দেখা গেছে।

একটি বিজ্ঞাপনে বলা হয়েছিল, এই কাজে ছেলেটির কাছ থেকে যৌন সেবা ও ভালোবাসা চাওয়া হচ্ছে। বিনা ভাড়ায় বাসস্থানের বদলে ঘর পরিষ্কার করতে হবে ও যৌন সেবা দিতে হবে।

বাসস্থানের জন্য মরিয়া পুরুষদেরও দেখা গেছে ফেসবুককেই শেষ অবলম্বন হিসেবে বেছে নিতে। ফ্লোরিডা থেকে একজন জানিয়েছেন, কোথাও থাকার জায়গা নেই। প্রয়োজনে আমি যে কোনো জায়গাতেই যেতে রাজি।

এ বিষয়ে বাজফিড নিউজের প্রতিবেদক প্যাট্রিক স্ট্রুডউইক আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, সমকামী পুরুষদের এভাবে প্রলুব্ধ করা হয়। আর এর পরিণতি প্রায়ই ভয়াবহ হয়। এক সমকামী পুরুষের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে, যাকে বাড়ির মালিক অনেকবার ধর্ষণ করেছিলেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here