‘এক নারী সাংবাদিকের সঙ্গে কথোপকথনের জন্য ডিআইজি মিজান স্যরি বলেছিলেন। তবে স্যরি বললেও তাকে মাফ করা হবে না। ঘটনার তদন্ত চলছে, প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

শনিবার বাংলা এডাডেমিতে ‘গৌরব ৭১’ শীর্ষক আলোচনা, গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা ও গুণীজন সম্মাননা অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

উল্লেখ্য, গত ৭ জানুয়ারি এক নারী অভিযোগ করেন, ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মিজানুর রহমান তাকে বাসা থেকে তুলে নিয়ে জোরপূর্বক বিয়ে করেন। রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানার লালমাটিয়ায় একটি ভাড়া বাড়িতে একসঙ্গে তারা বসবাসও করেন। কিন্তু শারীরিক নির্যাতন করা ছাড়াও মিথ্যা মামলায় মেয়েটিকে জেল খাটিয়েছেন ডিআইজি মিজান। একপর্যায়ে ওই নারী তার ফেসবুক পেজে নিজেকে মিজানের স্ত্রী পরিচয় দিয়ে একটি ছবি প্রকাশ করলে খেপে যান মিজান। বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশ পেলে সারাদেশে তোলপাড় শুরু হয়। পরবর্তীতে ডিআইজি মিজানকে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার পদ থেকে প্রত্যাহার করে নেয়া হয়।

গত ৩ মে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ডিআইজি মিজান সাংবাদিকদের বলেন, ‘এক নারী সাংবাদিকের সঙ্গে তার কনভারসেশন (কথোপকথন) হয়েছে। এ জন্য আমি স্যরি।’

শুধু স্যরি বলে অভিযুক্ত ডিআইজি পার পেয়ে যাবেন কিনা জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘স্যরি বললেই কি পার পাওয়া যায়? স্যরি বলে যদি মাফই পাওয়া যাবে তাহলে দেশে আইন-কানুন থাকার কী দরকার! তার (মিজান) বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে। প্রমাণিত হলে স্যরি বললেও তিনি মাফ পাবেন না। অবশ্যই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here