বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কবে জামিন পাচ্ছেন তা এখন বাংলাদেশের রাজনীতির মাঠে বহুল আলোচিত এক প্রশ্ন। জেলের স্যাঁতস্যাঁতে পরিবেশে থেকে খালেদা জিয়া অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে অনেক আগে থেকেই দাবি করে আসছেন বিএনপি নেতারা। তারা বলছেন, সরকার ইচ্ছে করে খালেজা জিয়ার জামিন দীর্ঘায়িত করছে। কারণ খালেদা জিয়াকে ছাড়াই সরকার নির্বাচন করতে চায়।

আর সরকার ও কারা কর্তৃপক্ষ বলছে, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার এমন কোনো অবনতি হয়নি যে, তাকে নিয়ে উদ্বিগ্ন হতে হবে। আর এর সঙ্গে জামিনের কোনো সম্পর্কও নেই। সরকার বিচারবিভাগের ওপর কোনো হস্তক্ষেপ করছে না, করবেও না। এছাড়া বিএনপির এত বড় বড় আইনজীবী থাকতে খালেদা জিয়া জামিন পাচ্ছেন না এটি দলটির জন্য লজ্জার।

বিভিন্ন সূত্র বলছে, খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া চার মাসের জামিন আদেশের পর তার কারামুক্তিতে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে বেশ কিছু আইনি প্রক্রিয়া। সেসব প্রক্রিয়া শেষে কবে নাগাদ খালেদা জিয়া জামিনে মুক্তি পেতে পারেন, সে বিষয়ে এখনও নিশ্চিত নন তার আইনজীবীরা।

তবে গতকাল আইনজীবীরা দেখা করার পর খালেদা জিয়া নাকি বলেছেন, তিনি বিশ্বাস করেন, আগামী ৮ মে সুপ্রিম কোর্টে শুনানিতে তিনি জামিন পাবেন।

গতকাল আইনজীবী রেজ্জাক খান বলেন, ‘জেলে স্যাঁতসেঁতে পরিবেশে থাকার কারণে দিন দিন তার স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটছে। মেডিকেল গ্রাউন্ডে জামিন দিয়েছে হাইকোর্ট, এটা সর্বোচ্চ আদালতে উপস্থাপনের জন্য তিনি আমাদের বলেছেন।’

জামিনের বিষয়ে আরেক জ্যেষ্ঠ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ‘জামিনের বিষয়ে তিনি (খালেদা জিয়া) জানতে চাইলেন-কী অবস্থা? আমরা তাকে বলেছি, দেশে যদি বিন্দুমাত্র আইনের শাসন অবশিষ্ট থাকে তাহলে হাইকোর্ট যে রেকর্ড পর্যবেক্ষণ করে তাকে জামিন দিয়েছেন, সেই জামিন সুপ্রিম কোর্ট কর্তৃপক্ষ স্থগিত করার নজির নেই। এক্ষেত্রে সুপ্রিম কোর্ট যেকোনও কারণেই হোক তার জামিন স্থগিত করেছেন। ৮ মে শুনানির দিন রয়েছে, আমরা আশা করি, ইনশাল্লাহ দেশে যদি বিচারের বিন্দুমাত্র পথ এখনও খোলা থাকে, তাহলে অবশ্যই আমাদের চেয়ারপারসনকে জামিন দেওয়া হবে।’

মাহবুব হোসেন আরও বলেন, ‘বাংলাদেশের সুপ্রিম কোর্টের ইতিহাসে এবং আমার ৫০ বছরের ক্রিমিনাল প্র্যাকটিসে পাঁচ বছর সাজার পর হাইকোর্ট বিভাগ যখন জামিন দেয় উচ্চ আদালত সেই জামিন কখনো স্থগিত করেননি। এখানে শুধু স্থগিতই করেননি, এখানে তারা পূর্ণাঙ্গ শুনানির জন্য দীর্ঘ সময় দিয়ে তারিখ নির্ধারণ করে দিয়েছেন।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here