জাপানি সংস্কৃতিতে এমনিতেই জুতাকে খুবই নিচু স্থানে রাখা হয়। জাপানিরা শুধু ঘরেই নয়, এমনকি অনেকে অফিসেও জুতা পরেন না। কিন্তু ইসরায়েল সফরে গিয়ে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবেকে খাবারের টেবিলেই জুতা দেখতে হবে তা হয়তো তিনি স্বপ্নেও ভাবেননি।

গত সপ্তাহে এমনটিই ঘটেছে খোদ ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহুর বাসভবনে। ইসরায়েল সফরের সময় গত ২ মে শিনজো আবে ও তার স্ত্রীর জন্য নেতানিয়াহু এক ভোজের আয়োজন করেন। সেখানে খাবার পরিবেশনের দায়িত্বে ছিলেন ইসরায়েলের সেলিব্রিটি শেফ সেগেভ মোশে।

সেই জুতোয় ভরা চকলেট

সবকিছুই ভালো চলছিল, তবে খাবারের শেষ পর্বে মোশে যখন শিনজো ও তার স্ত্রী চকচকে চামড়ার একটি জুতোয় চকোলেট পরিবেশন করেন তখনই পরিবেশ পাল্টে যায়।

এ ঘটনায় কূটনৈতিক শিষ্টাচারের কারণে শিনজো কোনো প্রতিক্রিয়া না দেখালেও ইসরায়েলের কর্মকর্তারা হতভম্ব হয়ে যান। এক ইসরায়েলি কর্মকর্তা একে মোশের অসংবেদনশীল সিদ্ধান্ত বলেও মন্তব্য করেন। তিনি এটিকে অত্যন্ত অসম্মানজনক হিসেবেও স্বীকার করে নেন।

শিনজো প্রতিক্রিয়া না দেখালেও জাপানের অন্যান্য কূটনীতিকরাও একে ভালোভাবে নেননি। এক কূটনীতিক বলেন, বিশ্বে কোথাও এমন সংস্কৃতি নেই যেখানে খাবার টেবিলে জুতা রাখা হবে। শেফ মোশে যদি সেটা মজার জন্যও করে থাকেন তব্ওু আমরা মনে করিনা এটা মজার বিষয়। এ ঘটনায় আমরা ক্ষুব্ধ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here