বিয়ের পরে মা আর স্ত্রীয়ের মন একসঙ্গে জুগিয়ে চলতে গিয়ে সমস্যায় পড়েন অনেক ছেলেই। কিন্তু সেই টানাপোড়েন যদি ভোটের লড়াইতেও হয়, তাহেল কী অবস্থা হয় তা ভালই টের পাচ্ছেন পশ্চিমবঙ্গের বীরভূমের ময়ূরেশ্বরের কার্তিক এবং অশোক লেট।

কার্তিক এবং অশোকের মা এবার রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচনে তৃণমূলের প্রার্থী। আবার তাদের দু’জনেরই স্ত্রী প্রার্থী হয়েছেন বিজেপি এবং সিপিএমের।

ইতিমধ্যেই এই ভোট নিয়ে শাশুড়ির সঙ্গে তাদের পুত্রবধূদের ঝগড়া-বিবাদ এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে তিনজনের মুখ দেখাদেখি প্রায় বন্ধ। নির্বাচন শেষ হলেও সেই সম্পর্ক স্বাভাবিক হবে কি না, তা নিয়েও নাকি এখন সংশয় রয়েছে।

জানা গেছে, দুই বউ এবং শাশুড়ি তিনজনই জয়ের বিষয়ে আশাবাদী। ফলে কেউ কাউকে এক ইঞ্চি মাটি ছাড়তে রাজি নন।

গ্রামের পুকুরের এক পাড়ে থাকেন শাশুড়ি সন্তোষী লেট। তিনি এবার তৃণমূলের প্রার্থী। পুকুরের দু’প্রান্তে থাকেন বড় ছেলের বউ রুপালি লেট এবং ছোট ছেলের বউ মমতা লেট। এরমধ্যে রুপালি লেট এবার বিজেপির প্রার্থী, আর মমতা সিপিএমের। তিনজনই এবার প্রথম রাজনীতিতে পা দিয়েছেন। তাদের আশা জিতলেই গ্রাম প্রধান হবেন।

শাশুড়ি সন্তোষী লেট বলেন, ‘বউমা হিসেবে ওদের সঙ্গে আমার ঘরের সম্পর্ক, রাজনীতির নয়। আমি জিতলেও ওদের সঙ্গে আর আগের মতো সম্পর্ক থাকবে কি না জানিনা। সব জেনেশুনে কেন ওরা আমার বিরুদ্ধে দাঁড়াল?’

পাল্টা বিজেপি প্রার্থী রুপালি লেট বলেন, ‘আমাদের আদর্শ ভারতীয় সংস্কৃতিকে তুলে ধরা। শাশুড়ি মা সম্মানের জায়গায়। কিন্তু লড়াইয়ের ময়দানে এক ইঞ্চি মাটি
ছাড়তে রাজি নই। প্রতিদিনই আমরা মানুষের কাছে যাচ্ছি। তাদের কাছে তুলে ধরছি দলের কথা।’

ছোট বউ মমতা লেটের দাবি, দল এবং মানুষের অনুরোধেই এবারে সিপিএম প্রার্থী হয়েছেন তিনি। একদিকে শাশুড়ি অন্যদিকে জা। দু’জনের বিরুদ্ধে লড়ছেন নিজস্ব রণনীতিতে। তার কথায়, গ্রামের অনেক অন্য দলের ভোটার আমাকে ভোট দেবেন বলে জানিয়েছেন। সেটাই ভরসা।

জানা গেছে, রাতমা গ্রামে ৬৪৩ জন ভোটার। গ্রামের ৬ নম্বর সংসদে লড়াই জমিয়ে দিয়েছে লেট পরিবারের এই রাজনৈতিক লড়াই। গ্রামবাসীরা এই লড়াই উপভোগ করলেও বিপাকে পড়েছেন সন্তোষীদেবীর দুইছেলে কার্তিক ও অশোক লেট। তাদের দাবি মা মায়ের মতো। আবার বউদের পাশে না দাঁড়ালেও ঘরে অশান্তি। আপাতত স্ত্রীদের পাশে থেকেই প্রচারে অংশ নিচ্ছেন তারা। কিন্তু ভোটটা কাকে দেবেন তা নিয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছেন কার্তিক-অশোক।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here