ঝুঁকির কারণে হাইহিল পরতে মেয়েদের নিরুৎসাহিত করেন অনেকে। এ ধরনের জুতা দীর্ঘদিন ধরে পরলে মানবদেহের হাড়ে বিরূপ প্রভাব পড়ে। স্ত্রীরোগ ও প্রসূতি বিশেষজ্ঞরাও সন্তান প্রসবের আগে বা পরে হাইহিল পরতে নিষেধ করেন। কিন্তু ভয়ঙ্কর হলেও বিশেষ এই জুতার প্রতি মেয়েদের দুর্বলতা রয়েছে।

তাই তো ছয় মাসের সন্তান মুহাম্মদ শেখকে নিয়ে বিয়ে বাড়িতে নিমন্ত্রণ খেতে গিয়েছিলেন মা ফাহমিদা শেখ। পায়ে ছিল হাইহিল জুতা। প্রিয় সেই জুতাই যে তার বুকের ধনকে কেড়ে নেবে গুণাক্ষরেও বুঝতে পারেননি ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যের কল্যাল শহরের এই নারী।

জানা গেছে, বিয়ে বাড়ির দোতলার বারান্দায় ছেলেকে কোলে নিয়ে হাঁটছিলেন ফাহমিদা। হঠাৎই হাইহিল জুতার ব্যালান্স হারিয়ে যায় মায়ের। কোল থেকে ছিটকে পড়ে ছোট্ট মুহাম্মদ। আত্মীয় স্বজনার দৌড়ে একতলায় গিয়ে দেখেন রক্তস্রোতে পড়ে রয়েছে শিশুটি। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন।

কল্যাণ শহরের পুলিশ কর্মকর্তা বিজয় খেদেকার স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, তারা এ দুর্ঘটনায় মৃত্যুর মামলা দায়ের করেছেন। বিয়ে বাড়িতে তদন্তও করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর ওই শিশুর দেহ তুলে দেওয়া হয়েছে পরিবারের হাতে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here