ভারতের রাজধানী দিল্লির বুকে মুঘল সম্রাট আকবরের নামাঙ্কিত একটি প্রধান রাস্তার নাম জোর করে বদলে দিয়ে সমসাময়িক রাজপুত হিন্দু রাজা বীর মহারানা প্রতাপের নামে রাখার চেষ্টা হয়েছে।

কট্টরপন্থী হিন্দু সংগঠন বজরং দলের বেশ কিছু সদস্য গতকাল আকবর রোডের নাম মুছে দেওয়ার চেষ্টা করে। পরে অবশ্য দিল্লির পৌর কর্তৃপক্ষ রাস্তার আগের নামই ফিরিয়ে দিয়েছে।

ক্ষমতাসীন বিজেপিরও বেশ কিছু নেতা বহুদিন ধরেই আকবর রোডের নাম বদলের দাবি জানিয়ে আসছেন।

প্রায় সাড়ে চারশো বছর আগে হলদিঘাটের যুদ্ধে মুঘল সম্রাট আকবরের কাছে পরাস্ত হয়েছিলেন চিতোরের রাজা মহারানা প্রতাপ। সেই আকবরের নামে কেন দিল্লির বুকে একটি রাজপথ থাকবে, এ নিয়ে বেশ কিছু রাজপুত ও হিন্দু সংগঠন কিছুদিন ধরেই আপত্তি জানিয়ে আসছে। বুধবার সকালে রানা প্রতাপের জন্মজয়ন্তীতে তারা নিজেরাই আইন হাতে তুলে নেয়।

বজরং দলের সদস্যরা আকবর রোডের সব নামফলক বদলে দিয়ে জানায়, যে মুসলিম শাসকরা ভারতকে আক্রমণ করে লুন্ঠন করেছেন তাদের নাম দিল্লি থেকে মুছে দেওয়া হবে। এটা রানা প্রতাপের দেশে, অতএব তার নামই থাকবে।

আকবর রোড দিল্লির একটি আইকনিক রোডই শুধু নয়, প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের সদর দফতরও এই রাস্তার ওপরেই। শীর্ষ কংগ্রেস নেতারা এই পদক্ষেপের কড়া নিন্দা করেছেন। কংগ্রেস নেতা রাজ বব্বর বলেন, ‘আমাদের দেশের সমৃদ্ধ ইতিহাসের সঙ্গে এভাবে ছেলেখেলা করা কিছুতেই মানা যায় না।’ এমপি রেনুকা চৌধুরীর আক্ষেপ, সব কাজ ফেলে শাসক দল কেন রাস্তার নাম বদলানোর পেছনে পড়েছে এটাই তার মাথায় ঢুকছে না।

বিজেপি নেতা সুব্রহ্মণ্যম স্বামী এর আগেই বলেছেন, কেন্দ্রীয় দিল্লিতে ৩৫ শতাংশ রাস্তাই না কি মুসলিম শাসকদের নামে, যা অবিলম্বে পাল্টানো দরকার।

হরিয়ানার বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল ও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ভি কে সিং পর্যন্ত আকবর রোডের নাম বদলের প্রস্তাব দিয়েছেন।

এর আগে বিজেপি সরকার দিল্লিতে আওরঙ্গজেব রোডের নামও বদলেছে। সমাজবাদী পার্টির মুনাব্বর সেলিমের মতে মুঘল বাদশাহদের মধ্যে শুধু আকবরকেই ভারত আজও সম্রাট নামে চেনে, কারণ তার মতো সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বার্তাবহ আর কেউই ছিলেন না।

মহারানা প্রতাপও ভারতের মহান বীরত্বের প্রতীক। কিন্তু এত বড় ভারতে তার নামে রাখার মতো আর কোথাও কোনও রাস্তা মিলবে না, এই আকবর রোডের নামই বদলাতে হবে – এটা কি হতে পারে? – প্রশ্ন তুলছেন তিনি।

কিন্তু আজকের বিজেপি-শাসিত ভারতে নামবদলের চেষ্টায় কোপ পড়ছে সব মুসলিম রাজাবাদশাহদের ওপরেই – তাতে রেহাই পাচ্ছেন না আকবরও। খবর বিবিসির।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here