চিকিৎসক ও নার্সদের সেবা দেয়ার মনোভাব নিয়ে কাজ করার তাগিদ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, আমাদের নার্স, ডাক্তার তাদের ভেতর এই কথাটা সব সময় থাকতে হবে, মানুষ যখন রোগী হয়ে আসে, তখন ওষুধের থেকেও ডাক্তার বা নার্সদের ব্যবহার, তাদের কথাবার্তা, তাদের সহানুভূতিশীল মনোভাব দেখে অর্ধেক রোগী ভালো হয়ে যেতে পারে।

শনিবার রাজধানীর মুগদায় ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব অ্যাডভান্সড নার্সিং এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চ (এনআইএএনইআর)-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘চিকিৎসকদের দোষ দেই না। এদেশের লোকসংখ্যা এতো বেশি। আর ডাক্তার-নার্স সেই তুলনায় এতো কম যে, তাদের বেশি রোগী দেখতে হয়, তাতে সব সময়, সকলের মেজাজ ঠিক রাখাও বেশ কঠিন হয়ে পড়ে।’

চিকিৎসকদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সরকারি চাকরি করবেন দিনভর, আর রাতে গিয়ে প্রাইভেট করবেন, তবে তো মেজাজ এমনিতেই খারাপ হবে। এটা খুব স্বাভাবিক। এইক্ষেত্রে আপনারা মনে হয় একটু হিসাব করে করবেন। আপনি কতটা ধারণ করতে পারেন, ততটাই করেন।’

শেখ হাসিনা আরো বলেন, ‘একটা বিষয় আমরা দেখি রোগ নির্ণয়ের ব্যাপারে কেন যেন কোথায় একটা বিরাট ভুল হয়ে যায়। যদিও যন্ত্রপাতি এখন অনেক উন্নত। তবে, সেগুলো পরিচালনার জন্য দক্ষ লোকের অভাব রয়েছে।’

এ জন্য স্কিলড লোক তৈরির প্রয়োজনীয়তার কথা বলে তিনি বলেন, ‘আপনারা উদ্যোগ নিয়ে কী করতে হবে বলেন, আমরা করে দেব। কোনো অসুবিধা নাই, আশ্বস্ত করেন প্রধানমন্ত্রী।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here