খুলনা সিটি করপোরেশন (কেসিসি) নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান করে বিএনপির মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগ প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেকের পক্ষে বনদস্যু, জলদস্যু, সন্ত্রাসী সবাই প্রকাশ্যে কাজ করেছে। এই অবস্থায় দায়িত্ব নিয়ে তিনি কীভাবে খুলনা মহানগরীকে মাদকমুক্ত, সন্ত্রাসমুক্ত, ভূমিদস্যুমুক্ত করবেন। আগামীতে খালেককে বোরকা পরে জনগণের সামনে বের হতে হবে, সেই পরিবেশই তিনি তৈরি করলেন।’

আজ সকালে খুলনা শহরের কে ডি ঘোষ রোডে মহানগর বিএনপির কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মঞ্জু এসব কথা বলেন। কেসিসি নির্বাচনের ফল ঘোষণার পর আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানাতে বিএনপি এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

ফল প্রত্যাখ্যান করে মঞ্জু বলেন, ‘এই নির্বাচন সর্বকালের ভোট ডাকাতির নতুন রূপ, নতুন সংস্করণ। নারী ভোট ডাকাত এখানে নতুন সংযোজন। ১০৫টি কেন্দ্রে ব্যালট ছিনিয়ে ভোট দেওয়া হয়েছে, ৪৫ টি কেন্দ্রে ভোটারদের আটকে দেওয়া হয়েছে। ভোট ডাকাতির অন্যতম দৃষ্টান্ত এটি। ভোট ডাকাতির এই নির্বাচনে জয়ী হয়েছে তালুকদার আব্দুল খালেক।’

মঞ্জুকে পাশে নিয়ে কাজ করতে চেয়ে খালেকের ঘোষণার বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে মঞ্জু বলেন, ‘প্রধান ভোট ডাকাত তিনি (খালেক)। তার পাশে থেকে সহযোগিতার কোনও মানসিকতাই আমার নেই। আমি এই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করছি।’

বিএনপির এই নেতা আরও অভিযোগ করেন, ‘এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ রাজনৈতিক শিষ্টাচার লঙ্ঘন করেছে। তবে বিএনপি প্রতিটি নির্বাচনে অংশ নিয়ে আওয়ামী লীগের চরিত্র ফুটিয়ে তুলবে। আগামীতেও বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেবে। এই নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠু নির্বাচনে সহায়ক না, যোগ্য না। বি‌জি‌বি, র‍্যাব ঘু‌মি‌য়ে ছিল। পু‌লিশ স‌ক্রিয় ছিল। সকাল থে‌কে রিটার্নিং অফিসার ফোন রি‌সিভ ক‌রেন‌নি। গতকা‌লের ভোট ডাকা‌তি প্রমাণ ক‌রে‌ছে সেনাবা‌হিনী ছাড়া নির্বাচন সম্ভব নয়।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here