বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন গত মাসে জানিয়েছিলেন, বিপিএলের ষষ্ঠ আসর মাঠে গড়াবে অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে। কিন্তু জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কারণে এ বছর নাও হতে পারে বাংলাদেশের ঘরোয়া এই টি-টোয়েন্টি প্রতিযোগিতা।

এ বছরের শেষ দিকে হবে জাতীয় সংসদ নির্বাচন। সেদিকেই বেশি ব্যস্ত থাকতে হবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে। ফলে অক্টোবর-নভেম্বরে বিপিএল হলে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা পাওয়া বেশ কঠিন হবে। তাই বিপিএলের ষষ্ঠ আসর মাঠে গড়াতে পারে জানুয়ারিতে। এমনটাই জানিয়েছেন বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্যসচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক।

জাতীয় এক দৈনিকে ইসমাইল হায়দার মল্লিক বলেছেন, ‘নির্বাচনের আগে তিন ভেন্যুতে সাত দলকে নিরাপত্তা দেওয়াটা খুবই কঠিন হবে। যদি প্রয়োজনীয় নিরাপত্তাব্যবস্থা না পাই, তাহলে টুর্নামেন্টটা নির্বাচনের পর করতে হবে। আমরা এটি জানুয়ারির দিকে আয়োজন করতে পারি।’

অনেক ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিক সরাসরি নির্বাচনের সঙ্গে যুক্ত থাকবেন। খুলনা টাইটান্স, রাজশাহী কিংস, সিলেট সিক্সার্স ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের মালিক সংসদ সদস্য অথবা বর্তমান সরকারের মন্ত্রী। তবে তাদের চেয়ে দলগুলোর নিরাপত্তাই ইসমাইল হায়দার মল্লিকের কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

‘অনেক ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিক নির্বাচনে যুক্ত থাকবেন। কিন্তু আমাদের চিন্তাটা হচ্ছে নিরাপত্তা নিয়ে। প্রত্যেকটি দলকে যদি পর্যাপ্ত পুলিশ বা নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য না দিতে পারি, তাহলে এটা আমাদের জন্য কঠিন হবে। এক সপ্তাহের মধ্যে আমরা একটা সিদ্ধান্ত নেব। তবে পেছানোর ভালো সম্ভাবনা আছে’- বলেছেন বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্যসচিব।

বিপিএল পিছিয়ে গেলে বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক সূচিতেও এর প্রভাব পড়বে। তিনটি টেস্ট ও তিনটি ওয়ানডে খেলতে আগামী জানুয়ারিতে বাংলাদেশ সফরে আসার কথা জিম্বাবুয়ের। সেটা অক্টোবরে এগিয়ে নিয়ে আসা হতে পারে। যদিও কমপক্ষে অক্টোবরের মাঝামাঝি পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে থাকবে জিম্বাবুয়ে।

তথ্যসূত্র: ক্রিকইনফো।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here