যজম দুই ছেলের বাবা হওয়ার আনন্দে এখন উদ্বেল রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক। আনন্দের রেশ ছড়িয়ে পড়েছে তার গোটা পরিবারেও। এখন তারা অপক্ষো করছেন নবজাতকদের কী নাম রাখা যায় তা নিয়ে। একইসঙ্গে দুই নতুন অতিথির আগমনের শুভক্ষণে উপহার হিসেবে তিনি দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ মন্ত্রী, উপদেষ্টা ও স্পিকারের বাসায় কুমিল্লার রসমালাই ও ছানামুখী মিষ্টি পাঠিয়ে দোয়া কামনা করছেন। সন্তানদের জন্য দোয়া চেয়েছেন দেশবাসীরও।

কুমিল্লা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুল হকের ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র জানায়, গতকাল থেকেই বিভিন্ন জায়গায় বিতরণের জন্য তার বাসায় বিপুল পরিমাণে কুমিল্লার রসমালাই ও ছানামুখী মিষ্টি নিয়ে আসা হয়। মন্ত্রী স্বয়ং এসব মিষ্টান্ন প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন গণবভনে নিয়ে যাবেন। এছাড়া আগামী সোমবার মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকেও সবাইকে মিষ্টি দিয়ে আপ্যায়ন করবেন বলে মন্ত্রী জানিয়েছেন।

সোমবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে রাজধানীর ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে সিজারিয়ান অপারেশনে দুই যমজ ছেলের জন্ম দেন রেলমন্ত্রীর স্ত্রী হনুফা আক্তার রিক্তা। বর্তমানে তিনি ওই হাসপাতালের ৯২২নং কেবিনে রয়েছেন। খবর পেয়ে মঙ্গলবার সকাল থেকেই দলীয় নেতাকর্মী ছাড়াও রেলপথ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার লোকজন ওই দম্পতিকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানাতে হাসপাতালে ভিড় করেন। কিন্তু সেখানে প্রবেশাধিকার সংরক্ষিত থাকায় অনেকেই অভ্যর্থনা বিভাগে ফুল রেখে চলে আসেন। তবে দিনভর মোবাইল ফোনে কল করে অনেকেই মন্ত্রীকে অভিনন্দন জানান।

এদিকে মন্ত্রীর বাবা হওয়ার খবরে তার নির্বাচনী এলাকা কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে নেতাকর্মীরা মিষ্টি বিতরণ করেছেন।

দুই ছেলের নাম রাখার বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের পরিবারের রীতি অনুসারে মিলাদ পড়িয়ে নাম রাখবো। আমার নাম অনুসারেই দুই ছেলের নাম রাখবো ইনশাল্লাহ।’

২০১৪ সালের ৩১ অক্টোবর ৬৭ বছর বয়সে কুমার জীবনের ইতি টেনে কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার মিরাখলা গ্রামের অ্যাডভোকেট হনুফা আক্তার রিক্তাকে বিয়ে করেন রেলপথমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক। পরে ২০১৬ সালের ২৮ মে তাদের মেয়ে সন্তানের জন্ম হয়। তার নাম জান্নাতুল মাওয়া (রিমু)।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here