দরিদ্র পরিবার। সংসারের তাগিদে প্রতিদিন সকালেই স্বামী-স্ত্রী কাজে চলে যান, ফিরেন সন্ধ্যায়। বাড়িতে একাকীই থাকে তাদের তৃতীয় শ্রেনীতে পড়ুয়া মেয়ে। স্কুলের সময় হলে স্কুলে যায় আবার ছুটি হলে বাড়ি ফিরে আসে। আর এ সুযোগে তার সঙ্গে কুকর্ম করে পাশের বাড়ির বৃদ্ধ সিদ্দিক আলী (৬০)। মেয়েটি এখন গর্ভবতী। ঘটনাটি নাটোরের লালপুর উপজেলার।

এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে লালপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। আসামি সিদ্দিক আলীকে গ্রেপ্তারও করেছে পুলিশ। এই বৃদ্ধ উপজেলার বালিতিতা ইসলামপুর গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের ছেলে।

ওই ছাত্রীর মা জানান, বাড়িতে লোক না থাকার সুযোগে ফুসলিয়ে এবং ভয় ভীতি দেখিয়ে তার মেয়ের সঙ্গে কুকর্ম করে বাড়ির পাশের ওই লম্পট বৃদ্ধ। এ ভাবে দিনের পর দিন এ কাজ করায় মেয়েটি গর্ভবতী হয়ে পড়েছে। শারীরিক পরিবর্তন নজরে পড়লেই মঙ্গলবার মেয়েকে জিঙ্গাসাবাদ করলে ঘটনা প্রকাশ পায়। পরে তাকে থানায় নিয়ে গিয়ে মামলা করেন তিনি।

লালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম জুয়েল জানান, এ বিষয়ে মঙ্গলবার মামলা হয়েছে। রাতেই লম্পট সিদ্দিক আলীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পরদিন তাকে আদালতে পাঠানো হয়।

তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) লাল মিয়া জানান, জবানবন্দী রেকর্ড করার জন্য ওই ছাত্রীকেও আদালতে হাজির করা হয়। পরে আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী তাকে নাটোর সদর হাসপাতালে নেওয়া হয় পরীক্ষার জন্য।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here