গাইবান্ধা সদর কামারজানী ইউনিয়নের মাটি মানুষের নেতা সাবেক চেয়ারম্যান সোলায়মান ইসলাম (কাচু) মিয়ার প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ২০১৭ সালের এই দিনে ২০মে বড় অসময়ে পৃথিবী ছেড়ে চলে যান তিনি।

জল, মাটি আর ব্রহ্মপুত্রের সাথে সখ্যতা ছিলো তাঁর। তবে বেশি সখ্যতা ছিলো কামারজানী ইউনিয়নের প্রতিটি মানুষের সাথে। শুধু কামারজানী নয়, আশে পাশের সব ইউনিয়ন ছাপিয়ে তিনি হয়ে উঠেছিলেন ব্রহ্মপুত্র বিধৌত উত্তর জনপদের প্রিয় চেয়ারম্যান। স্নেহ ভালোবাসা আর কঠোর নেতৃত্বের মিশেলে অসাধারণ মানুষটি আজীবন সাধারণ থাকতে চেয়েছেন অন্যদের কাছে।

অতিমাত্রায় ভাঙ্গনপ্রবণ এলাকার নেতা হওয়ায় নদী ভাঙন রোধ ছিল স্থানীয়দের প্রধান চাওয়া। সেই চাওয়ার মূল্য পরিশোধে সদা ব্যস্ত ছিলেন সোলায়মান ইসলাম (কাচু) মিয়া।

নদী গর্ভে একটু মাটিও বিলিন হলে হাহাকারে ভরে উঠতো তাঁর বুক। ভাঙন ঠেকাতে উর্ধ্বতন কর্তা-ব্যক্তিদের সাথে যোগাযোগ, স্থানীয়দের মাঝে সচেতনতা তৈরি একাই সব সামলিয়েছেন। বিরামহীন ঘুরেছেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্টদের দ্বারে দ্বারে। রক্ষা করেছেন ঐতিহ্যবাহি কামারজানী বন্দর। আবার ভাঙন শুরু হলে যে প্রকল্পে কাজ চলমান তাতেও তার ছাঁয়া ভাসছে অবিরাম।

যে ইউনিয়নের ৯৫ শতাংশ মানুষ দারিদ্রতার কষাঘাতে বিচলতি তাদের জীবনমান উন্নয়নে স্বল্প পরিসরে নানা উদ্যোগ নিয়েছেন চেয়ারম্যান কাচু মিয়া। সরকারের বরাদ্দের দিকে চেয়ে না থেকে নিজের ঘরকেই বানিয়েছিলেন জনগণের সাহায্যের আঁতুর ঘর।

অপরাধ ঠেকাতে আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে নিজেই নিয়েছেন নানা ব্যবস্থা। সামাজিক শত অনিয়ম অনাচারে অভিভাবক হয়ে দিয়েছেন সর্বত্তম সমাধান। সুবিচার নিশ্চিতে আপোসহীন নেতা হওয়ায় স্থানীয়রা থানায় না গিয়ে যেতেন তাঁর কাছে। এতে আশেপাশের অনেক ইউনিয়নের চেয়ে কামারজানী ইউনিয়নে মামলার সংখ্যাও ছিল কম।

হঠাৎ হৃদস্পন্দন বন্ধ হয়ে যেদিন ওপারে চলে গেলেন চেয়ারম্যান সোলায়মান ইসলাম (কাচু) মিয়া, সেদিন স্তব্ধ, বাকরুদ্ধ হয়েছিলো হাজার হাজার মানুষ। এমন মৃত্যু কিছুতেই মানা যায় না। মেনেও নিতে পারেননি কেউ। আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে তাঁর যে ধারা তা অব্যাহত থাকবে তো! এমন শঙ্কা উঁকি দিয়েছে অনেকের মাঝে। তবে গত এক বছরে সে শঙ্কা পরিণত হয়েছে আস্থায়। সোলায়মান ইসলাম (কাচু) মিয়ার পরিবারের প্রতি আস্থা রেখেছেন স্থানীয়রা। বাবার অশেষ কাজ ও তাঁর গড়া পথেই চলতে চায় ভালোবাসায় সিক্ত এ মানুষটির সন্তানরা।

উত্তরের হাওয়ায় এখনো কেঁপে ওঠে গাছের পাতা। ব্রহ্মপুত্রের জল ঝাপটা দেয় স্বপ্নবাজ জনগণের চোখে। যে স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন সহজ মানুষ চেয়ারম্যান সোলায়মান ইসলাম (কাচু) মিয়া। স্বপ্ন আছে, নেই সেই মানুষটি। তাঁর আত্মার মাগফেরাত কামনা।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here