অবশেষে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হলেন ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের পরবর্তী দ্বিতীয় উত্তরাধিকার রাজকুমার হ্যারি ও অভিনেত্রী-মডেল মেগান মর্কেল। গতকাল উইন্ডসর প্রাসাদে প্রিন্স হ্যারি ও মেগান মের্কেলকে স্বামী-স্ত্রী বলে ঘোষণা করলেন যাজক।

এদিন রানী এলিজাবেথ আর ৬০০ অতিথির সামনে আংটি বদল করে নতুন জীবন শুরুর ঘোষণা দিলেন তারা। এ সময় হ্যারির বাবা প্রিন্স চার্লস, ভাই প্রিন্স উইলিয়াম ও তার স্ত্রী কেট উইলিয়ামসসহ গণমাণ্যরা উপস্থিত ছিলেন।

তবে অভ্যাগতরা নাকি রাজকীয় এই বিয়ে দেখে দীর্ঘশ্বাস ফেলেছেন। অনেকেই আফসোস করে বলেছেন আজ যদি প্রিন্সেস ডায়ানা বেঁচে থাকতেন, তাহলে দুই ছেলে ও তাদের বউকে নিয়ে সত্যিই দারুণ খুশি হতেন।

বিবিসি জানিয়েছে, ব্রিটিশ ডিজাইনার ক্লারা ওয়েইট কেলারের ডিজাইন করা পোশাক পরে সেন্ট জর্জেস গির্জায়প্রিন্স হ্যারির সামনে হাজির হন মেগান। শ্বশুর প্রিন্স চার্লস তার হাত ধরে তাকে বিয়ের মঞ্চ পর্যন্ত এগিয়ে নিয়ে যান। মেগান তার শপথে স্বামীর প্রতি আজীবন ‘অনুগত’ শব্দটি বাদ দিয়েছেন। আর প্রিন্স হ্যারি রাজকীয় ঐতিহ্য ভেঙ্গে বিয়ের আংটি পরেছিলেন।

এখন থেকে এই দম্পতি পরিচিত হবেন ডিউক ও ডাচেস অব সাসেক্স হিসেবে।

আমন্ত্রিত অতিথিদের তালিকায় ছিলেন আমেরিকান টক শো হোস্ট ওপরাহ্‌ ইউনফ্রে, অভিনেতা জর্জ ক্লুনি, ইদ্রিস এলবা, গায়ক জেমস ব্লান্টের মতো তারকারা। এছাড়া এই বিয়ে উপলক্ষে কয়েক লাখ মানুষ উইন্ডসরে হাজির হন। সারা বিশ্বে কোটি কোটি মানুষ টেলিভিশনে এই বিয়ের অনুষ্ঠান সরাসরি উপভোগ করেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here