ঘুষ আদায়ের অভিযোগে অডিট কার্যালয় ও বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ড টেস্টিং ইন্সটিটিউট (বিএসটিআই) কার্যালয়ে ঝটিকা পরিদর্শন করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। রোববার দুপুরে এই দুটি কার্যালয়ে আকস্মিক পরিদর্শন করা হয়।

দুদক এনফোর্সমেন্ট অভিযান সমন্বয়ের দায়িত্বে নিয়োজিত মহাপরিচালক (প্রশাসন) মুনীর চৌধুরী জানান, কিছু সরকারি অফিসে ঈদের আগে ঘুষের প্রবণতা বেড়ে যায়। এসব অনাচার বন্ধ করতে অফিসগুলোকে নজরদারিতে রাখা হয়েছে। প্রয়োজনে ট্র্যাপ কেসের (ঘুষের ফাঁদ) মাধ্যমে ঘুষ আদান-প্রদান হাতেনাতে ধরা হবে।

দুদক সূত্র জানায়, বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের সেবার মান উন্নয়ন এবং ঘুষ-দুর্নীতির প্রবণতা বন্ধে আলাদা দুটি এনফোর্সমেন্ট টিম গঠন করা হয়েছে। এর আগে বৃহস্পতিবারও একইভাবে বিএসটিআই ও অডিট কার্যালয়ে ঝটিকা পরিদর্শন করা হয়। খাদ্যদ্রব্য প্রস্ততকারী প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে যাতে বিএসটিআই ঘুষ আদায় না করে এবং খাদ্যপণ্যের মান ও সরবরাহ নিশ্চিত থাকে সেজন্য এই পরিদর্শন। অন্যদিকে অডিট অফিসে ঘুষ, বকশিস ছাড়াই বিলসমূহ যেন যথাসময়ে পাস হয়, তা নিশ্চিত করতে এ অভিযান চালানো হয়।

প্রসঙ্গত রোববার ছিল বিএসটিআই’র মান দিবস। এর আগে সমুদ্র পরিবহন অধিপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী একেএম ফখরুল ইসলাম ও নাজমুল ইসলামকে হাতে নাতে ঘুষ সহ আটক করে দুদদ। তাদেরকে ধরে ঘুষের ফাঁদ পাতা হয়।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here