জুনের প্রথম সপ্তাহে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে আফগানিস্তানের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। সবগুলো ম্যাচ হবে ভারতের দেরাদুনে। দ্বিপাক্ষিক এই সিরিজে জেতাটা খুব জরুরি বলে মনে করেন বিসিবির গেম ডেভলপমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ সুজন।

সোমবার মিরপুরে তিনি বলেন, ‘আমাদের জন্য সিরিজ জেতাটা খুব জরুরি। সিরিজ জিতলেই র‌্যাংকিংয়ে আগাবে।’ বাংলাদেশ যেকোনো কন্ডিশনে আফগানিস্তানকে হারাতে সক্ষম জানিয়ে সুজন বলেন, ‘আফগানিস্তানকে হারানোর সামর্থ্য আমরা রাখি। যেকোন কন্ডিশনে আমরা ভালো ল। আমরা স্কিলফুল দল। আমারে ব্যাটিং, বোলিং সব ওদের থেকে ভালো। হ্যাঁ, ওদের বিশ্বসেরা স্পিনার আছে। কিন্তু ওদের পুরো দল ভারসাম্যপূর্ণ নয়। আমরা যদি আমাদের ডিসিপ্লিন ঠিক রাখি, বেটার ক্রিকেট খেলি তাহলে আমার মনে হয় এনি টাইম, এনি ডে আফগানিস্তানকে হারাতে পারি।’

মুশফিক-রিয়াদদের প্রস্তুতি নিয়ে সাবেক অধিনায়ক বলেন, ‘টি-টোয়েন্টির কথা মাথায় রেখেই বোলিং ফিল্ডিং হচ্ছে। বোলাররা নতুন বলে কি ফিল্ডিং নিয়ে বল করবে, পুরান বলে কি করবে ইত্যাদি। বৈচিত্রগুলো কি হচ্ছে। ব্যাটসম্যানদেরও একই। আক্রমণাত্মক খেলার অনুশীলন করছে। আপাতত সব ঠিকঠাক।’

টাইগার শিবির অনুশীলন শুরু করলেও দলের বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ এখনও ঢাকায় ফেরেননি। এ বিষয়ে সুজন বলেন, ‘কোর্টনি কাল (মঙ্গলবার) সন্ধ্যায় আসবে। কাল এসে মাঠে আসতে পারবে না। পরশু দিন তো আমাদের অফ থাকছে। ২৪ তারিখ থেকে হয়তো তিনি দলের সঙ্গে কাজ শুরু করবেন।’

গ্যারি কারস্টেনকে নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি জানি না যে গ্যারি কনসাল্টেন্ট হিসেবে এসছেন। তাকে যেভাবে আনি আমাদের কাজে লাগবে। যদি কাজও না করেন কথা বললেও হয়তোবা ভালো হবে। প্লানিং করে দিতে পারবেন। এরকম একটা মাথা, এমন বড় ক্রিকেটার আমাদের সঙ্গে থাকা মানে তো প্লাস পয়েন্ট। আশা করি এই অন্তর্ভুক্তি কাজে লাগবে। অচিরেই হয়ত এর সুফল দেখব।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here