বিশ্বকাপ ফুটবল এলেই পুরো বাংলাদেশের ফুটবল ভক্তরা দুই ভাগে ভাগ হয়ে যান। একদল পোঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল আর অন্যদল দুইবারের চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা। পাড়ায় পাড়ায় চলে এই দুই দলের পতাকা যুদ্ধও। তবে গত বিশ্বকাপ থেকে এই যুদ্ধ ছড়িয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

ইতিমধ্যেই ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা উভয় দলের সমর্থকরাই ফেসবুকে কোমর বেঁধে ঝগড়া শুরু করেছেন। উভয় দলের সমর্থকরাই একে অপরকে দুই দলের নানা পরিসংখ্যান, ঘটনা, অঘটন নিয়ে পচাচ্ছেন। উভয় পক্ষেরই দাবি তাদের দলই এবার বিশ্বকাপ জিতবে।

শুধু সাধারণ মানুষই নয়, ফেসবুকে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা তর্ক ছড়িয়ে পড়েছে বিশিষ্টজনদের মধ্যেও। এরমধ্যে অনেক সঙ্গীত ও চলচ্চিত্র তারকাও রয়েছেন।

জানা গেছে, ব্রাজিলকে পাচাতে এবার আর্জেন্টিনা সমর্থকরা ব্যবহার করছেন, গত বিশ্বকাপে জার্মানির কাছে নেইমারদের ৭-১ গোলের হার। যাকে আর্জেন্টিনা সমর্থকরা মজা করে ‘সেভেন আপ’ ডাকা শুরু করেছেন।

আবার আর্জেন্টিনাকে পচানোর মতো অস্ত্র ব্রাজিল সমর্থকদের কাছেও কম নেই। ফুটবল কিংবদন্তি দিয়োগো মারাদোনার ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ‘হ্যান্ড অব গড’ খ্যাত গোল বা বারবার শিরোপার কাছে গিয়ে আল বেসেলেস্তোদের ব্যর্থ হয়ে ফিরে আসা, জার্মান দুঃস্বপ্ন, গত মার্চেই স্পেনের বিপক্ষে ৬-১ গোলের হার এসব অস্ত্রের মধ্যে অন্যতম।

তবে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা ভক্তদের মধ্যে কখনো কখনো এই ঝগড়া কুৎসিত তর্কবিতর্কেও রূপ নিয়েছে। গতকাল নীতি বিশ্বাস নামে এক কিশোরী ফেসবুকে লেখেন-এ তে আর্জেন্টিনা মানে আদব, বি তে ব্রাজিল মানে বেয়াদব। তার উত্তর দিতেও সময় নেননি ব্রাজিল সমর্থকরা। রাসেল নামে আরেকজন পাল্টা রসিকতা করে লেখেন- ব্রাজিল মানে বিশ্বাস, আর্জেন্টিনা মানে শুধুই আশ্বাস। অনেকে আবার এসব আলোচনার মধ্যে ব্রাজিল তারকা নেইমার ও আর্জেন্টিনার তারকা লিওনেল মেসি সম্পর্কেও নোংরা কথা-ছবি ছড়িয়ে দিচ্ছেন।

ক্রিড়াপ্রেমিরা বলছেন, বিশ্বকাপ এলে ফুটবল নিয়ে এমন উন্মাদনা শুধু বাংলাদেশ নয়, সারা বিশ্বেই ছড়িয়ে পড়ে। প্রিয় দলকে যে কেউ সাপোর্ট করতেই পারেন। তবে এমন কিছু করা উচিত নয়, যা সত্যিই অশোভন। এ ব্যাপারে সবাইকে সচেতন হতে হবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here