দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে বাজে সময় কাটিয়েছে মেয়ে ক্রিকেটাররা। যেখানে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ। তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজেও তাই। টানা আট ম্যাচে হার। এই সফরে প্রাপ্তি কী? বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক রুমানা আহমেদ প্রাপ্তি বলতে শুধু অভিজ্ঞতার কথাই বলেছেন।

সব দিক থেকেই প্রোটিয়া মেয়েরা এগিয়ে ছিল বলে রুমানার দাবি, ‘আমার কি থেকে মনে হয়েছে ওরা অনেক এগিয়ে গেছে। তবে আমরা নিজেদের সেরাটা দিতে পারি না। ওরা পুরোপুরিই দেখিয়ে গেছে। ওদের পেস অ্যাটাক ছিল অসাধারণ। যেখানে আমরা অনেক পিছিয়ে গেছি।’ কন্ডিশনও বড় ফ্যাক্ট ছিল বলে জানান রুমানা।

প্রস্তুতি ম্যাচে বাংলাদেশের দুজন সেঞ্চুরি করেছিলেন। জয়ও এসেছিল। কিন্তু মাঠের লড়াইয়ে সেই চিত্র প্রতিফলিত হয়নি। এ প্রসঙ্গে রুমানা বলেন, ‘প্রত্যাশা বেড়েছিল। ওরেও কিন্ত ভাল ব্যাটসম্যান ছিল। প্রস্তুতি ম্যাচে খেলা ওদের দুই ব্যাটসম্যানের কিন্ত টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হয়েছে। প্রথম ম্যাচে (ওয়ানডে) হারের পরও ভাবছিলাম ঘুরে দাঁড়াতে পারব। কিন্ত ওরা নিজেরে আরও পরিবর্তন করে নিয়ে সেটা হতে দেয়নি।’

টানা হারলেও এই সফরে অভিজ্ঞতাটাই বেড়েছে শুধু মেয়েদের। যা মানছেন রুমানাও, ‘সামনে এশিয়া কাপ টি-টোয়েন্টি। ওডিআই নাই। প্রাপ্তি বলতে অভিজ্ঞতা বাড়লো। ওরা ভাল টিম। ভাল টিমের সাথে খেলতে কেমন প্রস্তুতি দরকার বা নিতে হবে সেটা বুঝেছি।’

কোচের বিদায়ে আবেগাপ্লুত ছিলেন রুমানা, ‘খুব কষ্ট হচ্ছিল। সে (ক্যাপেল) ১৮ মাস ছিলেন আমাদের সঙ্গে। উনারও অনেক কষ্ট হচ্ছিল, কেঁদে দিয়েছেন। আমরাও কেঁদেছি। কাতার বিমানবন্দরে তাকে আমরা বিদায় জানাই।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here