মারা গেছে শুনেই হাসপাতালে লাশ রেখে পালিয়ে গেলেন স্বজনেরা। বুধবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, রাত নয়টার দিকে কয়েকজন ব্যক্তি সাতক্ষীরা সদরের বল্লী ইউনিয়নের আমতলা গ্রামের মৃত অজিহার মোড়লের ছেলে ইউসুফ মোড়লকে (৫০) অচেতন অবস্থায় হাসপাতালের ইমার্জেন্সিতে নিয়ে আসে। পরে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করলে স্বজনেরা হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ইউসুফ মোড়লের দুই মেয়ে। প্রথম মেয়ের বিয়ে হয়ে গেছে। দ্বিতীয় মেয়ের বিয়ে নিয়ে খুব উদ্বিগ্ন ছিল ইউসুফ মোড়ল। প্রায়ই দ্বিতীয় মেয়ের বিয়ে সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বাকবিতণ্ডা হতো স্ত্রীর সাথে। বুধবার সন্ধ্যায় পারিবারিক কলহের কারণে গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে চুপচাপ বাড়ির পাশে বসে ছিল। এরপর মারাত্মক অসুস্থ হয়ে গেলে তার স্বজনেরা তাকে দ্রুত সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছিল। তবে পথিমধ্যেই সে মারা যায়।

সাতক্ষীরা সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ শরীফুল আলম বলেন, লাশ ময়না তদন্ত করা হচ্ছে। ময়না তদন্ত শেষে ঘটনার বিস্তারিত জানা যাবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here