কুষ্টিয়া ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) যেন মাদকের আখড়া। ঝোপের আড়ালে চলছে গাঁজা চাষ। তাই চিরুনি অভিযান শুরু করেছে প্রশাসন। কয়েকধাপে গাছগুলো তুলে ফেললেও বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল, লেক, পুকুরপাড়সহ বিভিন্ন জায়গায় গাঁজার গাছ দেখা গেছে।

মূলত ক্যাম্পাসের কয়েকটি জায়গায় বেড়ে ওঠেছে গাঁজা এবং ভাংয়ের গাছ। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলসহ আশপাশের বিভিন্ন স্থানে গাঁজার গাছ বেশি। হলের আন্তর্জাতিক দ্বিতীয় এবং চতুর্থ ব্লকের মাঝখানে আগাছার মধ্যে বেড়ে উঠছে ছোট-বড় মিলে প্রায় ২০ থেকে ২৫টি গাছ।

গেল ২১ মে হলের পশ্চিম পার্শ্বের আগাছা ও ঝোপঝাড় পরিষ্কার করে হল কর্তৃপক্ষ। আগাছা পরিষ্কার করা হলেও কাটা হয়নি ৩ থেকে ৪ ফুট লম্বা তরতাজা দুটি গাঁজা গাছ। বিষয়টি আবাসিক শিক্ষার্থীদের নজরে এলে প্রশাসনকে জানান তারা। কিন্তু এখনো কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য প্রফেসর ড. রাশিদ আসকারী বলেন, মাদকের যেকোনো গাছ বা বীজ তুলে ফেলার অভিযান শুরু হয়েছে। আশা করছি প্রশাসনের চিরুনি অভিযানে দুয়েকদিনের মধ্যে গাঁজার একটি গাছও ক্যাম্পাসে থাকবে না।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here