‘আমি প্রতি বছরই রোজা রাখি। শুক্রবারে শুটিং করি না, সাধারণত আমার জুমার নামাজও মিস যায় না। আমার মনে হয়, প্রত্যেকটা মুসলমানের এগুলো করা উচিত।’ কথাগুলো বলছিলেন হালের সেরা নায়ক শাকিব খান। আজ বাংলাদেশে তো কাল লন্ডন কিংবা কলকাতা। একের পর এক সিনেমার শুটিং নিয়ে ব্যস্ত এপার-ওপার বাংলার এই জনপ্রিয় নায়ক।

এই রমজানেও তুমুল ব্যস্ত শাকিব। তবে রোজায় শুটিং না করে শুধু নামাজ-রোজা নিয়ে থাকতে পারলেই ভালো হতো। কিন্তু উপায় তো নেই। এই কাজের সঙ্গে আরও কত মানুষের রুটিরুজি জড়িত। এ বিষয়ে শাকিব বললেন, ‘আমার হয়তো এই মুহূর্তে টাকার দরকার নেই। কিন্তু অনেকেই আছেন কাজ না করলে দৈনন্দিন জীবন চালাতে পারবেন না।’

তবে শুটিং চালিয়ে গেলেও ধর্মকর্ম থেকে এতোটুকুও সরে যাননি শাকিব। তিনি বললেন, ‘নামাজের সময় নামাজ পড়ছি আবার শুটিং করছি। এমনিতেই দিনটা পার হয়ে যায়। শুটিং, নামাজ আর রোজা, একসঙ্গে মিশে গেছে। আর এটা তো নতুন নয়, আমার প্রতি বছরই রোজায় শুটিং করতে হয়।’

তিনি বলেন, ‘রোজা ঈদে আমার সব সময়ই ছবি মুক্তি পায়। তার কিছু না কিছু কাজ থেকেই যায়, সে কারণে রোজা রেখে শুটিং করার অভ্যাসটা পুরোনো।’

এদিকে অপুর সঙ্গে সম্পর্ক না থাকলেও ছেলে আব্রাম খান জয়কে ঠিকই সময় দেন শাকিব খান। এ রমজানে তার একটা প্রতিজ্ঞা আছে। আর সেটা প্রিয় ছেলেকে নিয়েই করতে যাবেন তিনি। শাকিব বলেন, ‘একাধিকবার ওমরাহ্‌ পালন করা হয়েছে। এ বছরও ওমরাহ করার জন্য সৌদি যাবো। আগামী সপ্তাহেই যাওয়ার ইচ্ছা। সেখানে গেলে একটা তৃপ্তি লাগে। এবার আব্রামকে নিয়ে যাওয়ার ইচ্ছা আছে। বাপ-ছেলে একসঙ্গে যাবো বলে ভাবছি।’

শিশু আব্রাম মা অপুকে ছাড়া কী করে থাকবে তার উত্তর অবশ্য দেননি এই নায়ক। নাকি অপুকেও সঙ্গে নিয়ে যাবেন, সেটাও জানাননি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here