কুমিল্লার লাকসামে রেল লাইনের পাশ থেকে প্রবাসীর স্ত্রীর ১০ টুকরো লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ওই নারীকে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেছে তার স্বজনরা। এ ঘটনার পর থেকে নিহত আম্বিয়ার (৩৮) দেবর মজিবুল হক ও তার স্ত্রী পরভীন বেগম পলাতক।

আম্বিয়া নাওটি গ্রামের মৃত আব্দুল লতিফের ছেলে দক্ষিণ আফ্রিকা প্রবাসী রবিউল হোসেনের স্ত্রী এবং নাঙ্গলকোট উপজেলার পেরিয়া ইউনিয়নের শালুকিয়া গ্রামের মৃত আলী আহাম্মরে মেয়ে।

শনিবার রাতে ঢাকা-চট্টগ্রাম রেল সড়কের আশকামতা থেকে তার ১০ টুকরো লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত আম্বিয়া দুই সন্তানের জননী। তার এক সন্তান প্রতিবন্ধী।

লাকসাম রেলওয়ে থানা পুলিশ ওই নারীর টুকরো লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

নিহতের ভাই ইস্রাফিল খাঁন অভিযোগ করে বলেন, ‘আমার বোনের স্বামী রবিউল হোসেন দক্ষিণ আফ্রিকা প্রবাসী। স্বামী স্ত্রীর মধ্যে খুবই মিল রয়েছে। পারিবারিক অর্থ ও সম্পত্তি নিয়ে তার দেবর মজিবুল হক ও তার স্ত্রী পরভীন বেগমের সাথে বিরোধ চলছিল। এসব কারণে তারা আমার বোনকে হত্যা করে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার জন্য তার লাশ রেললাইনে ফেলে রাখে। যারা আমার বোনকে হত্যা করেছে আমি তাদের বিচার চাই।’

লাকসাম রেলওয়ে থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) মো. আতাউর রহমান জানান, এ বিষয়ে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here