বান্ধবীকে আলিঙ্গন করেছিলেন এক কিশোর সহপাঠী। সেই আলিঙ্গনের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করার পর সেখানে অন্য বন্ধুদের ‘লাইক’ পড়ে। এ নিয়ে স্কুল কর্তৃপক্ষ ছেলেটির পরিবারকেও অপমান করে।

সেই অপরাধে তাকে স্কুল থেকে বহিষ্কার করা হয়। এরপর বোর্ড পরীক্ষায় অংশ নেয়াই কঠিন হয়ে পড়েছে ওই কিশোরের জন্য। এক পর্যায়ে বিষয়টি আদালতের নজরে আনা হলে আদালত এতে হস্তক্ষেপ করতে নারাজি জানায়।

শেষ পর্যন্ত স্থানীয় সংসদ সদস্য শশী থারুর হস্তক্ষেপে কেন্দ্রীয় উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা সেন্ট্রাল বোর্ড অব সেকেন্ডারি এডুকেশন (সিবিএসই) পরীক্ষায় অংশ নেয়ার সুযোগ পায় ছেলেটি। এরপরই বাজিমাত।

গত শনিবার ওই পরীক্ষার ফল প্রকাশ হয়। আর তাতে দেখা পরীক্ষায় ছেলেটি ৯১ দশমিক ২ শতাংশ নম্বর পেয়েছে। এর মধ্যে ইংরেজিতে ৮৭, অর্থনীতিতে ৯৯, ব্যবসায় শিক্ষায় ৯০, হিসাববিজ্ঞানে ৮৮ এবং মনোবিজ্ঞানে ৯২ নম্বর পেয়েছে।

এত প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্যেও তার এমন কীর্তি অনেকের সমীহ আদায় করে নিয়েছে। ভারতের কেরালা রাজ্যের রাজধানী থিরুভানানথাপুরামে এ ঘটনা ঘটে।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়, ছেলেটি তার মেয়ে বান্ধবীকে দীর্ঘ আলিঙ্গন করে। এবং সেই ছবি ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করে। এতে থিরুভানানথাপুরামের সেন্ট টমাস সেন্ট্রাল স্কুলের দ্বাদশ শ্রেণির ১৭ বছর বয়সী ওই ছাত্র ও তার সহপাঠীকেও বহিষ্কার করে। মেয়েটি একাদশ শ্রেণির ছাত্রী।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here