অসুস্থ জামাইয়ের সেবা করতে এসেছিলেন শাশুড়ি। অতঃপর দুজনের মধ্যে হয়ে যায় প্রেমের সম্পর্ক। সেখান থেকে বিয়ে। শাশুড়ি হয়ে যান স্ত্রী। এখন সেই স্ত্রীকে তালাক দিয়ে ফের তার মেয়েকে নিয়েই সংসার করতে চান ওই ব্যক্তি। আর এজন্য অনুমতি চেয়ে আদালতে আবেদন করেছেন জামাই।

ভারতীয় গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে মঙ্গলবার গালফ নিউজের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

আদালতে এ বিষয়ে শুনানি শুরু হয়েছে। বিহারের মাধেপুরা জুলার ২২ বছর বয়সী বাসিন্দা সুরাজ মেহতা ওই সময় তিনি ৪২ বছর বয়সী শাশুড়ি আশা দেবীকে বিয়ে করে ব্যাপক আলোচনার জন্ম দেন।

অপরাধবোধে ভুগতে থাকা মেহতা বলেন, ‘আমার বোকামি বুঝতে পারছি। আমি স্বীকার করছি, ভুল করেছিলাম; তবে এ ধরনের ঘটনা ভবিষ্যতে আর হবে না। এখন আমার শাশুড়িকে স্ত্রী হিসেবে গ্রহণ করতে পারছি না। বর্তমানে আমি তাকে মা হিসেবে দেখছি।’

মেহতা বলেন, ‘এখন প্রথম স্ত্রী ললিতা দেবীকে বুঝানোর জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করবেন; যেন তার সঙ্গে আবার ঘর শুরু করেন। প্রথম স্ত্রী বর্তমানে বাবার বাড়িতে রয়েছেন। মেহতার মতই ভুল ভেঙেছে আশার।’

তিনি বলেন, ‘আমি তাকে স্বামী হিসেবে এখন মেনে নিতে পারছি না; তাকে মেয়ের জামাই হিসেবে দেখছি। আমরা তালাকের জন্য আদালতে আবেদন করেছি; যত দ্রুত সম্ভব আমার প্রথম স্বামীর কাছে ফিরতে চাই।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here