আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণ নিয়ে সাকিবের বাবা মামরুর রেজা কুটিল বলেছেন, ‘এ ধরনের কোন আলোচনা আমাদের সাথে কখনো সাকিবের হয়নি। খেলার মাঠে তার সিদ্ধান্তের প্রতি আমরা যেমন আস্থাশীল। তেমনি এ ধরনের কোন বিষয় থাকলে সাকিব নিজেই সেটা ভালো বুঝবে।’

মাগুরা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পংকজ কুমার কুন্ডু একট বিষয়ে বলেন, ‘সাকিবের ক্রিকেট নৈপুণ্যে মাগুরাবাসী গর্বিত। মাগুরার কৃতি সন্তান সে। কিন্তু জেলার সামাজিক কোনক্ষেত্রে তার কোন অংশগ্রহণ নেই। জেলার কোন কিছুতেই তার কোন অবদান নেই। যেহেতু নির্বাচনের প্রার্থিতার সাথে জেলার আপামর জনসাধারণের জন সমর্থনের প্রশ্ন থাকে। সে কারণে সাকিবকে নিয়ে মাগুরা কেন্দ্রিক এ ধরনের কোন আলোচনা হলে সেটি আমাদের কাছে অনেকটাই অসমর্থিত বলে মনে হবে। তার সাথে নূন্যতম যোগাযোগ পর্যন্ত আমাদের নেই।’

সাকিবের নিজ বাড়ি মাগুরা শহরের কলেজ পাড়ার বাসিন্দা আবু সালেহ এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘সাকিবকে নিয়ে আমরা গর্বিত। আমরা অনেক ক্ষেত্রেই তাকে দিয়ে আমাদের মাগুরা জেলাকে সাকিবের জেলা হিসেবে চিহ্নিত করি। কিন্তু সাকিব স্থানীয় সামাজিকতার প্রশ্নে অনেকটাই পিছিয়ে আছেন। তিনি কখন মাগুরায় আসেন কখন যান তা মাগুরাবাসী কমই জানতে পারেন। ঈদের জামাতে সাধারণ মানুষের সাথে কোলাকুলি পর্যন্ত করেন না। সবক্ষেত্রেই সামাজিকতা এড়িয়ে চলেন। হতে পারে খ্যাতিমান তারকা হিসাবে কোন বিধিনিষেধ থাকতে পারে। তবু জেলায় এ ধরনের একজন খ্যাতনামা মানুষের কতকিছু করার আছে। কিন্তু তিনি তা করেন না।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here