দেশের চলচ্চিত্র আঙিনায় এ প্রজন্মের যে কজন নায়িকা খুব অল্প সময়ের মধ্যে দর্শকের মন জয় করেছেন তাদেরই একজন তমা মির্জা। দ্রুত সময়ের মধ্যে দর্শকপ্রিয়তা পাওয়ার পেছনে অবশ্য বেশকিছু কারণও আছে। তার অপরূপ সৌন্দর্য আর গ্লামার্স তাকে যেমন দর্শকের হৃদয়ের মণিকোঠায় নিয়ে এসেছে তেমনি তার অনবদ্য অভিনয়ও মন জয় করেছে কোটি কোটি দর্শকের।

১ জুন ছিল এই অভিনেত্রীর জন্মদিন। তবে ভিন্নভাবে নিজের জন্মদিন পালন করতে গিয়ে জন্ম দিলেন বিতর্কের। রাজধানীর একটি রেস্টুরেন্টে উদযাপনের শুরুতেই ফেসবুক লাইভে আসেন তমা মির্জা। যেখানে দেখা যায়, তার পাশে বসেই কয়েকজন বন্ধু সীসা খাচ্ছেন। এর মধ্যে নারী বান্ধবীও ছিলেন। আর তমা ফেসবুক বন্ধুদের শুভেচ্ছার জবাব দিচ্ছিলেন।

নিজের জন্মদিন প্রসঙ্গে তমা মির্জা বলেন, ‘প্রতিবারই জন্মদিন পালন করি। তবে তা ঘরোয়াভাবে। কিন্তু এবার বন্ধু-বান্ধবদের নিয়ে এ দিনটা উদযাপন করেছি। তবে আগামী দিনগুলো যেন সুস্থ-সুন্দরভাবে কাটাতে পারি, ভক্তদের কাছে সেই দোয়া চাই।’

বাগেরহাটের মেয়ে তমার শৈশব-কৈশোর কেটেছে কচুয়াতে। সেখানে মাধ্যমিক পাস করে রাজধানীর সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজ থেকে ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে উচ্চমাধ্যমিক দেন। ছোটবেলায় স্বপ্ন ছিল আইনজীবী হওয়ার। সে লক্ষ্যে বর্তমানে মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে আইন বিষয়ে পড়াশোনা করছেন এ অভিনেত্রী।

২০০৯ সালে শাহীন-সুমন পরিচালিত ‘মনে বড় কষ্ট’ সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় তমার। এরপর অনন্ত হীরার ‘ও আমার দেশের মাটি’, শাহাদাত হোসেন লিটনের ‘তোমার কাছে ঋণী’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন তিনি।

নায়িকা তমা মির্জা
নায়িকা তমা মির্জা

এ ছাড়া মুক্তিপ্রাপ্ত ছবির তালিকায় রয়েছে- বল না তুমি আমার, একমন একপ্রাণ, একবার বলো ভালোবাসি, পালাবার পথ নাই, মানিক রতন দুই ভাই, ছোট্ট সংসার, ইভটিজিং, তোমার কাছে ঋণী, তোমার মাঝে আমিসহ আরও বেশ কয়েকটি। তমা বর্তমানে বেশ কয়েকটি সিনেমার কাজ নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

বাংলাদেশের সর্বোচ্চ পুরস্কার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও পেয়েছেন তিনি। শাহনেওয়াজ কাকলীর ‘নদীজন’ সিনেমায় অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব চরিত্রের পুরস্কার পান তমা মির্জা।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here